শিক্ষক থেকে জঙ্গি, উজ্জ্বল রিমান্ডে

  • 7
    Shares

সাহেব-বাজার ডেস্ক: রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলার একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন-জেএমবির শীর্ষ নেতা এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টারের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শুক্রবার বিকেলে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বেগম মাহমুদা আক্তারের আদালত এই আদেশ দেন। মোহাম্মদপুর থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শাকিল জোয়ার্দ্দার তাকে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন।

আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, আসামি দীর্ঘদিন ধরে নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন-জেএমবির সদস্য হিসেবে কাজ করে আসছেন। এই আসামি আত্মঘাতী কাজে জড়ানোর জন্য ও জিহাদের জন্য প্রচ্ছন্ন হুমকি প্রদান এবং ধর্মীয় উগ্রবাদী বই সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে সরবরাহ করতেন।

এই আসামিকে নিয়ে ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করলে আসামির কাছ থেকে সহযোগী ও পলাতক আসামিদের নাম-ঠিকানা উদ্ধার এবং অর্থ যোগানদাতাদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে। তাই আসামিকে রিমান্ডে নেয়া প্রয়োজন। শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভোরে রাজধানীর বসিলা এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে র‌্যাব এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টারকে গ্রেপ্তার করে।

ময়মনসিংহের একটি কলেজ থেকে বিএ পাস করে প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করেছিলেন এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টার। জঙ্গি সংশ্লিষ্টতায় ওই স্কুল থেকে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। পরবর্তী সময়ে ২০০২ সালে মুক্তাগাছায় একজন জঙ্গি নেতার বয়ান শুনে শায়েখ আব্দুর রহমানের কাছে বায়াত গ্রহণ করেন। এরপর জামালপুরে একটি আস্তানায় প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। জঙ্গিবাদে ব্যাপক তৎপরতা থাকায় দ্রুত তিনি ময়মনসিংহের অঞ্চলের দুর্ধর্ষ নেতা হয়ে ওঠেন।

র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তার এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টার শীর্ষ জঙ্গি নেতা শায়খ আব্দুর রহমান, বাংলা ভাই ও সালাহউদ্দিন সালেহীনের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন। তিনি জেএমবির শীর্ষ নেতাদের ময়মনসিংহে সফরকালে বিশেষ দায়িত্বে থাকতেন। বিশেষ করে নেতাদের গোপন আস্তানায় অবস্থান, মিটিং ও বয়ান আয়োজনে ভূমিকা রাখতেন।

গত ৪ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহে গ্রেপ্তার চার জঙ্গিসহ জেএমবির জুলহাসসহ ১০ সদস্য তার কাছ থেকে বায়াত গ্রহণ করেন। এই দশজনই বিভিন্ন সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন।

এসবি/জেআর


  • 7
    Shares