বড় ব্যবধানে পরাজয়ের শঙ্কায় বাংলাদেশ

  • 1
    Share

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ক্যান্ডি টেস্টে বড় ব্যবধানে পরাজয়ের শঙ্কায় রয়েছে বাংলাদেশ। দিনের শুরুতে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সাজঘরে ফেরেন ১৭ রান করা লিটন দাস। এরপরই তার পথ ধরেন তাইজুল ইসলামও। এখন পর্যন্ত ৭ উইকেট হারিয়েছে টাইগাররা। দরকার এখনো ২১৫ রান।

শ্রীলঙ্কার দেয়া ৪৩৭ রানের লক্ষ্যে ম্যাচের চতুর্থ দিনই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ, স্কোরবোর্ডে রান তুলতে পেরেছিল ১৭৭। ফলে শেষদিন জয়ের জন্য বাকি থাকে আরও ২৬০ রান। কিন্তু হাতে উইকেট ছিল ৫টি। শেষ স্বীকৃত ব্যাটিং জুটি মেহেদি হাসান মিরাজ ও লিটন দাসের কাঁধে ছিল অসাধ্য সাধনের দায়িত্ব। তবে তারা সেই দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। মাঠে এখনো রয়েছেন মিরাজ। সঙ্গ দিচ্ছেন তাসকিন আহমেদ। ব্যাট করতে বাকি রয়েছেন আবু জায়েদ ও শরিফুল ইসলাম।

বাংলাদেশকে ফলোঅনে ফেললেও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে আসে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাই। ২ উইকেটে তৃতীয়দিন শেষে করে চতুর্থদিনের খেলায় রবিবার ফের ব্যাটিংয়ে নামেন আগেরদিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান।

ব্যাট হাতে দ্রুত রান তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন লঙ্কানরা। দ্রুত রান করার পাশাপাশি ক্ষণে উইকেটেও হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১৯৪ রানে করুনারত্নেরা ইনিংস ঘোষণা করলে আগের ইনিংসের ২৪৩ রানের লিডসহ বাংলাদেশের জন্য টার্গেট দাঁড়ায় ৪৩৭ রান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বরাবরের মতোই ভালো সূচনা এনে দেন টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল। টানা পঞ্চম ইনিংসে হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়া হয়নি তার। আগের টেস্টে ক্রিকেটে ব্যক্তিগত ক্যারিয়ারে আগের চার ইনিংসে ফিফটির দেখা পেলেও এবার ফিরেছেন মাত্র ২৪ রানে।

দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করতে আসা নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে ৪২ রানের জুটি গড়ে ফেরেন ওপেনার সাইফ হাসান। জয়াবিক্রমার বলে লাকমালের হাতে ক্যাচ দেয়ার পূর্বে ৪৬ বলে ৩৪ রান করেন তিনি। এরপর ৪৪ বলে ২৬ রান করা শান্তকে বোল্ড করেন ওই জয়াবিক্রমাই।

দলীয় অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের ব্যাটিংয়ে স্বস্তি পাওয়া শুরু করলে এমন সময় আউট হন দলনেতা। ৪৮ বলে ৩২ রান করে মেন্ডিসের বলে বোল্ড হন তিনি।

আগের প্রত্যেক ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘর পারলেও হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পাননি কেউই। কিন্তু মুশফিকের কাছে হয়তো ছোট্ট একটা ফিফটির প্রত্যাশা ছিল। কিন্তু হতাশ করেছেন তিনিও। আউট হওয়ার পূর্বে করেন ৪০ রান।

বৃহস্পতিবার টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে লাহিরু থিরিমান্নের ১৪০, দিমুথ করুনারত্নের ১১৮ রানের সুবাদে ৭ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া একটি করে উইকেট পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম এবং শরিফুল ইসলাম।

 

এসবি/এমই


  • 1
    Share