বিশ্বে প্রতি চার সেকেন্ডে ক্ষুধায় একজনের মৃত্যু


সাহেব-বাজার ডেস্ক : বিশ্বজুড়ে ক্ষুধার পরিধি যেভাবে বাড়ছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দুইশোটিরও বেশি এনজিও এবং সংগঠন। ক্রমবর্ধমান ক্ষুধার অবসানে এখনই যথাযথ পদক্ষেপ নিতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তারা।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশন শুরুর আগে গত মঙ্গলবার বিশ্বনেতাদের উদ্দেশ্যে এক খোলা চিঠিতে এই আহ্বান জানানো হয়। চিঠিতে তথ্য-উপাত্ত দিয়ে বলা হয়, বর্তমানে বিশ্বে প্রতিদিন ১৯ হাজার ৭০০ জন মানুষ ক্ষুধায় মারা যাচ্ছে বলে ধারণা করা হয়। খবর এএফপির।

অর্থাৎ প্রতি চার সেকেন্ডে একজন মানুষ ক্ষুধায় মারা যাচ্ছে। এ ছাড়া এটি খুবই বিস্ময়কর যে বিশ্বজুড়ে প্রায় সাড়ে ৩৪ কোটি মানুষ এখনো তীব্র ক্ষুধা নিয়ে ঘুমাতে যায়। খাদ্য সংকটে খাদের কিনারে দাঁড়িয়ে ৪৫টি দেশের আরও ৫ কোটি মানুষ।

বিশেষ করে ২০১৯ সালের পর খাদ্য সংকটে ভুগতে থাকা মানুষের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। অথচ একবিংশ শতকের শুরুতে সব রাষ্ট্রনেতা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, বিশ্বকে আর দুর্ভিক্ষ দেখতে হবে না। কিন্তু বাস্তবে সে প্রতিশ্রুতি পূরণের প্রতিফলন দেখা যায়নি।

বস্তুত দুর্ভিক্ষের ছায়া সবচেয়ে বেশি গ্রাস করেছে আফ্রিকা মহাদেশকে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়েমেন ফ্যামিলি কেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তা মোহানা আহমেদ আলি এলজাবালি গত মঙ্গলবার বলেছেন, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক যে কৃষি এবং ফসল কাটার সমস্ত প্রযুক্তি সত্ত্বেও আজ আমরা একবিংশ শতাব্দীতে দুর্ভিক্ষের কথা বলছি। কোনো একটা দেশ বা একটা মহাদেশের সমস্যা নয় এটা।

দুর্ভিক্ষ কোনো একটা কারণে হয় না। মানবতার প্রতি অবিচারই এর আসল কারণ। এক দল মানুষ যখন প্রাচুর্যের আয়োজনে মগ্ন, অন্য দলের কাছে প্রাণ বাঁচানোর মতো খাবারটুকুও নেই। তাই দেরি না করে সবাইকে এগিয়ে আসার ডাক দিয়ে মোহানা বলেন, অভুক্ত মানুষের পাশে যে যতটা পারেন দাঁড়ান।

 

এসবি/এমই