বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

  • 1
    Share

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ‘বসন্ত বাতাসে সইগো’, কোন মেস্তরি নাও বানাইছে, ‘আগে কি সুন্দর দিন কাঠাইতাম’ কেনো পিরিতি বাড়াইলা’- এমন অসংখ্য গানের রচয়িতা একুশে পদকপ্রাপ্ত বাউল শাহ্ আব্দুল করিমের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ শনিবার।

১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সুনামগঞ্জ দিরাই উপজেলার উজানধল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এই বাউল সম্রাট। কিংবদন্তিতুল্য এই বাউল গানে-গানে অর্ধ শতাব্দীরও বেশি লড়াই করেছেন ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে।

এ জন্য মৌলবাদীদের দ্বারা নানা লাঞ্ছনার শিকার হয়েছিলেন এই বাউল।

তিনি ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের সময় গণসংগীত গেয়ে লাখ লাখ তরুণকে উজ্জীবিত করেছেন। পেয়েছেন একুশে পদক।

২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর কোটি ভক্তকে ছেড়ে চলে যান এই বাউল। দেশে করোনা পরিস্থিতির কারণে তার মৃত্যুবার্ষিকী ঘিরে এবার কোনো আনুষ্ঠানিকতা  করেননি তার স্বজন ও ভক্তরা। তবে সন্ধ্যায় তার নিজ বাড়িতে মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন রয়েছে।

বাউল সম্রাটের ভক্ত ও পরিবারের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল তার স্মৃতির সংরক্ষণে একটি জাদুঘর নির্মাণ এবং তার সমাধিস্থলটি নির্মাণের।

ইতিমধ্যেই বাউল সম্রাটের বাড়িতে নির্মাণ করা হয়েছে শাহ আব্দুল করিম স্মৃতি জাদুঘর এবং আধুনিক সমাধিস্থল জাদুঘর ঘিরে প্রতিদিনই বসে করিম ভক্তদের গানের আসর। তার গান গেয়ে তার প্রতি শ্রদ্ধা আর গানের মধ্যে তাকে বাঁচিয়ে রাখতেই সবার মাঝে তার গান ছড়িয়ে দিতে চান ভক্ত আশেকানরা।

শাহ আব্দুল করিমের জন্মভিটায় থাকার ব্যবস্থাসহ সংগীতালয় ও কমপ্লেক্স নির্মাণের দাবি করা হচ্ছে গত প্রায় এক দশক ধরে। একই সঙ্গে তার সুরধারাকে বিকৃতভাবে না গাওয়ার দাবিও তুলেছেন বাউল ভক্তরা।

বাউল শাহ আব্দুল করিমের ছেলে শাহ নুর জালাল জানান, এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকীর কোনো আনুষ্ঠানিকতা রাখা হয়নি তবে তার মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে নিজ বাড়িতে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন রাখা হয়েছে।

এসবি/এমই


  • 1
    Share