বছরজুড়ে রাজশাহীর আলোচিত ঘটনা


সাহেব-বাজার ডেস্ক: নানা ঘটন অঘটনের সাক্ষী হয়ে থাকবে ২০২২ সাল। শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) রাত পেরুলেই কালের গর্ভে হারিয়ে যাবে বছরটি।

আনন্দ-বেদনা, সাফল্য-ব্যর্থতা, আশা-নিরাশা, প্রাপ্তি-বঞ্চনার হিসাব-নিকাশ পেছনে ফেলে পূব গগনে উঠবে নতুন বছরের সূর্য। নতুন বছরকে স্বাগত জানানোসহ আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে উঠবে সবাই।

তবে তার আগেই কি পেলাম কি হারালামের হিসাব-নিকাশ কষছেন অনেকে। কি কি ঘটে গেল তার স্মৃতিচারণও চলছে।

সেই প্রেক্ষিতে বলা যায় – বছরজুড়ে আলোড়ন তুলেছিল রাজশাহীর বেশ কিছু ঘটনা।

বিশেষ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ড বার বার আলোচনায় এসেছে। জোর করে সিট দখল, সাধারণ শিক্ষার্থীকে হল থেকে নামিয়ে দেওয়া, মাদকসহ ধরা পড়া, সাইকেল চুরি, ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি কাণ্ডে জড়িত হিসেবে নাম আসা, দোকানে বাকি খেয়ে টাকা না দেওয়াসহ নানান ঘটনায় বছরজুড়ে বার বার খবরের শিরোনাম হয়েছেন রাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে সেসব খবর, যা ভাইরাল হয়েছে- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও। দিনপঞ্জীর সেসব ঘটনাসহ আরও আলোচিত খবর নিয়ে সেজেছে রাজশাহীর ২০২২ সালের সালতামামি।

নারী শিক্ষককে মারধর:

এই বছরের শুরুতেই রাজশাহীর একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক এক নারী শিক্ষককে মারপিট করেন। গত ২ জানুয়ারি জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার ক্ষুদ্র শাওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই শিক্ষককে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এরপর ওই নারী শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়ায় শেষ পর্যন্ত তাকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। আর বছরের শুরুতেই আলোচনায় উঠে আসে এই শিক্ষক নির্যাতনের ঘটনা।

এই ঘটনার পর ২০২২ সাল জুড়ে আরও কয়েকটি শিক্ষক নির্যাতনের ঘটনা ঘটে রাজশাহীতে। এই বছর পরপর নির্যাতনের হয়েছেন কয়েকজন সাংবাদকর্মীও। রাজশাহীর তোলপাড় করা এসব ঘটনা তাই বছরজুড়ে আলোচিত হয়েছে গোটা দেশেই।

দুই কৃষকের আত্মহত্যা:

সবচেয়ে বেশি আলোচিত ঘটনা ছিল গোদাগাড়ীতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর দুই কৃষকের আত্মহত্যার ঘটনা।

রাজশাহীর বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) গভীর নলকূপ থেকে বোরো ধানের ক্ষেতে সেচের পানি না পেয়ে দুই কৃষক আত্মহত্যা করেন। গত ২১ মার্চ গোদাগাড়ীর নিমঘুটু গ্রামের কৃষক অভিনাথ মারান্ডি ও তার চাচাতো ভাই রবি মারান্ডি বিষপান করেন।

পরে হাসপাতালে ভর্তির পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রাজশাহীর গোদাগাড়ী থানায় আলাদা দুটি আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা দায়ের করা হয়। পরে পুলিশ বিএমডিএর বরখাস্ত হওয়া অপারেটরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

সংসদ সদস্যের হাতে কলেজ অধ্যক্ষ লাঞ্ছিত:

এরপরের আলোচিত ঘটনা ছিল রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী- তানোর) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর হাতে কলেজ অধ্যক্ষ মারধরের শিকার হওয়ার ঘটনা। গত ৭ জুলাই ব্যক্তিগত কার্যালয়ে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী গোদাগাড়ীর রাজাবাড়ী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে পেটান। এ নিয়ে দেশজুড়ে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এ ঘটনায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের করা তদন্ত কমিটিও ওই ঘটনার সত্যতা পায়।

শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করানো:

রাজশাহীতে আবার ঘটে শিক্ষককে লাঞ্ছিত করারঘটনা। গত ৪ আগস্ট রাজশাহী মহানগরীর হাড়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের শিকার হন। ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমা ফেরদৌসি তার এক নারী সহকারী শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করান। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়৷ পরে জেলা শিক্ষা অফিস এ ঘটনার তদন্ত করে। এতে ঘটনার সত্যতা মেলে।

জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির অডিওক্লিপ ভাইরাল:

বছরটিকে আরও ঘটনাবহুল করে তোলে ছাত্রলীগ। এক নারী কর্মীকে অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়ার সময় জেলা ছাত্রলীগের এক নেতা দম্ভোক্তি করে বলেন ‘আমি সব চিটারের সর্দার’। তার এই অডিও ক্লিপটি ফাঁস হওয়ার পর দেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এরপর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ রাজশাহী এসে ঘটনাটি তদন্তও করেন। পরে গত নভেম্বরে ভাইরাল হওয়া সেই নেতাকে দল থেকে বরখাস্ত করা হয়। তিনি হলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম রানা।

ছাত্রলীগ নেতার ফেনসিডিল সেবনের ভিডিও ভাইরাল:

এরপর ভাইরাল হয় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমির ফেনসিডিল সেবনের ভিডিও। ভাইরাল হওয়ার পর এক আদেশে পদ হারান তিনি । গত ২০ অক্টোবর সভাপতিকে বরখাস্ত ও সম্পাদককে অব্যাহতির পাশাপাশি কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। যদিও ভিডিও ভাইরালের পর ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন অমি সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছিলেন- ফেনসিডিল নয়, তিনি ‘স্পীড’ পান করেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা ধোপে টেকেনি। নৈতিক স্খলনজনিত কারণে ছাত্রলীগ নেতা সাকিবুল ইসলাম রানা ও জাকির হোসেন অমিকে অব্যাহতি দেয় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদ।

সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় তোলাপাড়:

রাজশাহী সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাটিও গোটা দেশজুড়ে আলোচনা হয়। গত ৫ সেপ্টেম্বর পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় রাজশাহীতে থাকা বিএমডিএ কার্যালয়ে কর্মকর্তা- কর্মচারীদের হামলার শিকার হন এটিএন নিউজের রাজশাহী প্রতিনিধি বুলবুল হাবিব ও ক্যামেরাম্যান রুবেল ইসলাম। এ নিয়ে বিএমডিএর নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদকে প্রধান আসামি করে নির্যাতিত সাংবাদিক মামলা করেছেন। তা এখন আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

এর আগে গত ২৬ মে বিকেলে মহাগরীর ভুবনমোহন পার্কে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে মারামারি করছিলেন দলটির নেতাকর্মীরা। ছবি তুলতে গেলে তারা অন্তত ছয়জন সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করেন। এরপর গত ১৮ নভেম্বর রাজশাহীর বিতর্কিত অভিজাত ‘হোটেল এক্স’-এ সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হন দৈনিক ইত্তেফাকের রাজশাহীর স্টাফ রিপোর্টার আনিসুজ্জামান।

রাবির দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু:

বছর জুড়েই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি)। প্রতিষ্ঠানের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু নিয়ে উত্তপ্ত হয়েছে শহর এবং দেশ। এরমধ্যে গেল ১ ফেব্রুয়ারি ক্যাম্পাসে ট্রাকচাপায় মারা যান গ্রাফিক ডিজাইন, কারুশিল্প ও শিল্পকলার ইতিহাস বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মাহমুদ হাবিব হিমেল। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সে রাতেই ক্যাম্পাসে থাকা পাঁচটি ট্রাকে জ্বালিয়ে দেন।

গত ১৯ অক্টোবর রাবির হলের বারান্দা থেকে পড়ে নিহত হন মার্কেটিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র শাহরিয়ার রহমান। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ওই রাতে রাবি শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, হাসপাতালে সময়মতো চিকিৎসা দেওয়া হয়নি হাসপাতাল ভাঙচুর করেন।

এর প্রতিবাদে ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা কয়েক দফা কর্মবিরতি পালন করেন। শাহরিয়ারকে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা রাবি শিক্ষার্থীরাও পাল্টা বিক্ষোভ কর্মসূচি চালিয়ে যান। রাবি শিক্ষার্থী ও রামেক ইন্টার্ন চিকিৎসকদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজশাহী। বাংলানিউজ।

এসবি/জেআর