পদ্মা সেতু পার হয়ে স্বর্গে যাবেন ফখরুল


সাহেব-বাজার ডেস্ক: টোল দিয়ে পদ্মা সেতু পার হয়ে স্বর্গে যাওয়ার স্লোগান দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার (১০ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গ্যাসসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বাড়ার প্রতিবাদে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, পাকিস্তান আমলে আমরা যখন ছাত্র ছিলাম, ছাত্র আন্দোলন করতাম, রাজপথে স্লোগান দিতাম, তখন বিভিন্নভাবে স্লোগান দিতাম। তখন গান-টান গাইতাম, কীর্তনও গাইতাম। ওই সময় তেলের দাম ১০ টাকা বাড়লেই বিরাট ব্যাপার ছিল। তখন আমরা স্লোগান দিতাম ‘১০ টাকার তেল খেয়ে স্বর্গে যাব’। এখন বলতে চাই, ‘টোল দিয়ে আমরা পদ্মা ব্রিজ পার হয়ে স্বর্গে যাব’।

তিনি বলেন, তারা (সরকার) বলে উন্নয়ন, এত উন্নয়ন যে সোনা দিয়ে সব মুড়ে দিচ্ছে। আমাদের রুমিন ফারহানা গতকাল খুব ভালো বলেছেন যে, পদ্মা ব্রিজ হচ্ছে গোল্ডেন ব্রিজ। সোনা দিয়ে মোড়াই করা একটা ব্রিজ বানাইছে।

কার টাকায় আপনারা পদ্মা ব্রিজ বানিয়েছেন প্রশ্ন করে তিনি বলেন, জনগণের টাকায়। জনগণের পকেট কেটে ট্যাক্স নিচ্ছেন। ভ্যাট, ট্যাক্স, অমুক ট্যাক্স তমুক ট্যাক্সের নামে মানুষের কাছ থেকে সব টাকা নিয়ে যাচ্ছেন। আর কী করছেন? ঋণ নিয়েছেন। সেই ঋণের বোঝা বাংলাদেশের মানুষকে বইতে হবে। সাড়ে ১০ হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট ৩০ হাজার কোটি টাকা করেছেন। আমরা জানতে চেয়েছি, বাকি টাকাগুলো আপনারা কীভাবে খরচ করলেন? খবর নিয়ে দেখবেন তার বেশির ভাগ টাকাই তাদের পকেটে গেছে। একটা লোকও বাকি নেই-সবগুলো টাকা চুরি করে তাদের পকেট ভারি করেছে, ব্যাংকে ভরেছে আর বিদেশে পাচার করেছে। এজন্য সিঙ্গাপুরে যদি যান দেখবেন, বড় বড় শপিংমল তৈরি হচ্ছে, বাড়ি তৈরি হচ্ছে। কারা মালিক? বাংলাদেশি লোকেরাই মালিক। কানাডায় যান ওখানে একটা বেগমপাড়া তৈরি হয়ে গেছে, মালয়েশিয়াতে যান সেকেন্ড হোম তৈরি করেছে। কারা? আওয়ামী লীগ নেতা-মন্ত্রীরা, তাদের মদদপুষ্ট ব্যবসায়ীরা। এ লোকগুলোকে বড় লোক করার জন্য আমরা দেশ স্বাধীন করিনি, এ লোকগুলোকে চুরি-চামারি-লুণ্ঠন করার জন্য আমরা আমাদের রক্ত দেইনি। আমরা ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছি একটা গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের জন্য, বৈষম্যহীন বাংলাদেশের জন্য।

মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালামের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু ও আমিনুল হকের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য দেন। সমাবেশে বিএনপির সহস্রাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এসবি/জেআর