নাট্যকার হবো কখনও ভাবিনি


সাহেব-বাজার ডেস্ক: সাবিলা নূর। অভিনেত্রী ও মডেল। নাটক, টেলিছবি ও চলচ্চিত্রের কাজ নিয়ে কাটছে তার ব্যস্ত সময়। অভিনয় ক্যারিয়ার নিয়ে বর্তমান ভাবনা ও অন্যান্য বিষয়ে কথা হয় তার সঙ্গে-

অনেকে ওয়েব সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু আপনাকে টিভি নাটকেই বেশি দেখা যাচ্ছে; কারণ কী?

ওয়েব সিরিজে কাজ করতে চাই না, তা নয়। ভালো গল্প ও চরিত্র পেলে যে কোনো মাধ্যমেই কাজ করার ইচ্ছা আছে। দর্শক আসলে ভালো গল্পই পর্দায় দেখতে চায়। হোক তা নাটক, টেলিছবি, ওয়েব সিরিজ কিংবা সিনেমা। তাই কিছু করার আগে দেখে নিই গল্প ও চরিত্র দর্শকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে পারব কিনা।

অভিনয়ের পাশাপাশি গল্পকার হিসেবে আপনার আত্মপ্রকাশ। গল্প লেখা কি নিয়মিত চালিয়ে যেতে চান?

নাট্যকার হওয়ার বিষয়ে কখনও ভাবিনি। চারপাশের নানা ঘটনা থেকে বিভিন্ন সময় মাথায় গল্পের প্লট চলে আসে। আমার ধারণা, অনেকের ক্ষেত্রেই এটা হয়। কোনো ঘটনা চোখে পড়লে মনে হয়, এটা নিয়ে কোনো নাটক বা সিনেমার গল্প লেখা যেতে পারে। করোনার এ সময়ে ‘পারাপার’ নাটকের গল্পভাবনা এভাবেই মাথায় এসেছিল। আর নিজের গল্পে অভিনয় করতে পেরে অন্যরকম এক অভিজ্ঞতাও হয়েছে।

টেলিভিশনের পাশাপাশি এখন অনলাইনের জন্যও নাটক নির্মিত হচ্ছে। এ বিষয়টি কীভাবে দেখেন?

অনলাইন আমাদের সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিয়েছে। ভালো বাজেটে নানা ধরনের কাজের সুযোগ পাচ্ছেন নির্মাতারা। যে জন্য তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতাও চলছে। আর এ প্রতিযোগিতা থেকেই ভালো কাজ হচ্ছে।

প্রতিটি নাটকে আপনাকে ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে দেখা যাচ্ছে। অভিনয় বিষয়ে আজকাল চরিত্রকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন?

দর্শকের কাছে নিজেকে সবসময় নতুন রূপে তুলে ধরতে চাই। এ কারণেই গল্পের পাশাপাশি চরিত্রকে গুরুত্ব দিচ্ছি। তা ছাড়া আমিও চাই না, একই ধরনের চরিত্রে দর্শক বারবার দেখুক। নিজেকে পরিণত শিল্পী হিসেবে তুলে ধরতে নানা ধরনের চরিত্রে কাজ করতে চাই। অভিনয়ের মধ্য দিয়ে এভাবেই সমাজের নানা স্তরের মানুষের জীবন সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছি।

ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায় অভিনয় করছেন। কেমন ছিল ‘বঙ্গবন্ধু’ ছবির কাজের অভিজ্ঞতা?

শ্যাম বেনেগালের মতো খ্যাতিমান নির্মাতার সঙ্গে কাজ করে অনেক কিছু শিখেছি। সব মিলিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু’ ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো।

এসবি/জেআর