নকল কসমেটিকস ও ইলেকট্রনিক্স পণ্যের কারখানাকে জরিমানা


নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে দুটি নকল কসমেটিকস ও একটি নকল ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরির কারখানাকে জরিমানা করা হয়েছে। তিনটি নকল প্রতিষ্ঠানকে মোট সাড়ে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। সোমবার দুপুরে অধিদপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক হাসান-আল-মারুফ জেলার পুঠিয়া উপজেলায় এ অভিযান চালান। অভিযানে র‌্যাব-৫ এর রাজশাহীর একটি দল তাঁকে সহযোগিতা করে।

অভিযান শেষে হাসান-আল-মারুফ জানান, পুঠিয়া উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে টেলিভিউ ইলেকট্রনিকস নামের একটি কারখানায় সনি ও ফিলিপসের মোড়ক নকল করে নিম্নমানের বৈদ্যুতিক বাল্ব দেওয়া হতো। একই সাথে সেখানে নিম্নমানের চার্জারসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরি করা হতো। এই কারখানাটির কোন অনুমোদনও নেই। জরিমানা করে কারখানা বন্ধ করা হয়েছে।

অন্যদিকে পুঠিয়ার বানেশ্বর এলাকার ম্যাডোনা কসমেটিকস নামের কারখানাকে দেড় লাখ এবং ইউসুফ কসমেটিকসকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর। হাসান-আল-মারুফ জানান, ম্যাডোনা কসমেটিকস মিথ্যা বিজ্ঞাপন দিয়ে ক্রেতাদের সাথে প্রতারণা করছিল। এই প্রতিষ্ঠানের পণ্যের লিফলেটে বলা হয়েছে ক্রিম ‘সম্পূর্ণ হালাল’। কিন্তু হালালের কোন সনদ তাদের নেই। এরা বলেছে, আট রকমের মেছতার মধ্যে পাঁচটিই দূর হয় তাদের ক্রিম ব্যবহার করলে। কিন্তু কোন ধরনের মেছতা সে সম্পর্কে কোন ধারণা তাদেরই নেই।

প্রতিষ্ঠানটি আরও বলেছে, ক্রিম ব্যবহার করলে ১০ দিনে গায়ের রং ফর্সা হবে। কিন্তু এর কোন বৈজ্ঞানিক কারণও তারা দেখাতে পারেনি। তাই প্রতিষ্ঠানটিকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্যদিকে ইউসুফ কসমেটিকসে ‘লতা হারবাল’ নামে কসমেটিকস পণ্য তৈরি করা হচ্ছিল। মোড়কে এর ঠিকানা দেওয়া আছে গাজীপুর। কিন্তু উৎপাদন হচ্ছে রাজশাহীতে। এটাও প্রতারণা। অনুমোদনহীন এই কারখানাটিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যহত থাকবে বলেও জানান ভোক্তা অধিকারের কর্মকর্তা হাসান-আল-মারুফ।

এসবি/আরআর/এআইআর