তিন বন্ধুর জলকুঠি রেস্তোরাঁ


নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর পবা উপজেলার ফলিয়ার বিল এলাকার নামকরণ একটি বিলের কারণেই। ফলিয়ার বিল এলাকায় গ্রামের ভেতর দিয়ে এঁকেবেঁকে চলে গেছে একটি পাকা সড়ক। সড়কটির পাশের সেই বিলে একটি দৃষ্টিনন্দন রেস্তোরাঁ গড়ে তুলেছেন তিন বন্ধু। বিলের পানির ওপর বাঁশ আর কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে সে রেস্তোরাঁ। সম্প্রতি এর উদ্বোধন হয়েছে।

এটির উদ্যোক্তা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী পারভেজ মোশাররফ, রাজশাহী কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ইমাইল তালুকদার ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষার্থী শিমুল পারভেজ। করোনাকালে অলস সময় কাজে লাগাতে তাঁরা রেস্তোরাঁটি গড়ে তুলেছেন।

রেস্তোরাঁটি রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ খড়খড়ি বাইপাস থেকে ছয় কিলোমিটার দূরে। তিনবন্ধু রেস্তোরাঁটির নাম দিয়েছেন ‘ফলিয়ার বিল জলকুঠি’। বিলের পানির ওপর বাঁশ-কাঠের মাত্র তিনটি ‘কুঠি’ নিয়ে রেস্তোরাঁটি তৈরি করা হয়েছে। আর কুঠিগুলোতে যাওয়ার জন্য কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে রাস্তা। উদ্বোধনের পর ভালোই সাড়া পাচ্ছেন উদ্যোক্তারা।

তাঁরা জানান, গ্রামীণ পরিবেশে দৃষ্টিনন্দন করে নির্মাণ করায় তাঁদের রেস্তোরাঁয় মানুষের ভিড় লেগেই থাকছে। নির্মল বাসাতে কুঠিগুলোতে বসে বিনোদনপিপাসু সুন্দর সময় কাটাচ্ছেন। রেস্তোরাঁ থেকে সন্ধ্যা নামার অপরূপ দৃশ্য দেখার জন্যও অনেকে ভিড় করছেন।

সম্প্রতি এক সন্ধ্যায় রেস্তোরাঁটিতে গিয়ে তুলিকা জাহান (২০) নামে এক তরুণী বলেন, ফেসবুকে ছবি দেখেই অসাধারণ লেগেছিল। এখানে এসে দেখি, জায়গাটি ছবির চেয়েও সুন্দর। খুব ভাল লেগেছে। এখন এখানে মাঝে মাঝেই বেড়াতে আসতে ইচ্ছে করবে।

রেস্তোরাঁটি প্রতিদিন দুপুর থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকে। কর্মী আছেন ১২ জন। কম মূল্যেই সেখানে, স্যান্ডুইস, পাস্তা, কফি, ফাস্টফুড, কোল্ড ড্রিংকসহ অন্যান্য খাবার পাওয়া যায়। কিছু দিনের মধ্যে বাড়তে পারে খাবারের তালিকা। সেইসঙ্গে রেস্তোরাঁটির পরিধি বৃদ্ধির পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছেন এর উদ্যোক্তারা।

এসবি/আরআর/এআইআর