টাকা ফেরত পাননি রেলের ছয় হাজার যাত্রী

  • 294
    Shares

শিরিন সুলতানা কেয়া : বাংলাদেশ রেলওয়ের কাছে প্রায় ২১ লাখ টাকা পাবেন রাজশাহীর ছয় হাজার যাত্রী। সর্বাত্মক লকডাউনে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় টিকিটের মূল্য হিসেবে তাঁরা এই টাকা পাবেন। টিকিট ফেরত দিয়ে টাকা ফেরত পেতে তাঁরা স্টেশনে ঘুরছেন। কিন্তু তাঁদের টাকা দিতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

টিকিট ফেরত দিতে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে যান নগরীর কাদিরগঞ্জের বাসিন্দা তৌহিদুল ইসলাম (৪০)। তিনি জানান, গত ১২ জুন রাতে তাঁর রাজশাহী থেকে ঢাকা যাবার কথা ছিল। এ জন্য আগাম টিকিট কেটেছিলেন। কিন্তু এরই মধ্যে লকডাউন দেয়া হলে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। তাই এসেছেন টিকিট ফেরত দিতে। কিন্তু ফেরত নেয়ার মত কাউকেই পেলেন না।

রেলওয়ে স্টেশনের সামনেই দাঁড়িয়ে ছিলেন নগরীর কুমারপাড়া এলাকার বাসিন্দা শরিফা খাতুন। তিনি জানালেন, শুক্রবার বিকাল ৫টা থেকে লকডাউন শুরু হয়েছে। আগের দিনের এই ঘোষণা শুনে শুক্রবার সকালেই তিনি টিকিট ফেরত দিতে এসেছিলেন। কাউন্টার থেকে সেদিন বলা হয়েছিল, শুক্রবার ছুটির দিনে ব্যাংক বন্ধ। টাকা তোলা যায়নি। তাই টিকিট ফেরত নেয়া যাবে না। রোববার থেকে টিকিট ফেরত নেয়া হবে। তিনি এসেছেন আরও অনেক পর। তাও টাকা ফেরত দেয়া হয়নি। এবার বলা হয়েছে, লকডাউন শেষ না হলে টাকা ফেরত দেয়া যাবে না।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক আবদুল করিম জানান, ১১ থেকে ১৪ তারিখ পর্যন্ত বিভিন্ন রুটের আগাম টিকিট বিক্রি করা হয়েছিল। ট্রেনের অর্ধেক আসনের মধ্যে ২৫ শতাংশ টিকিট কাউন্টার থেকে এবং ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করা হয়েছিল। কিন্তু ১১ জুন থেকেই ট্রেন বন্ধ হয়ে যায়। এখন যাত্রীদের শতভাগ টাকা ফেরত দিতে হবে।

তিনি জানান, চারদিনের ছয় হাজারের মত যাত্রী প্রায় ২১ লাখ টাকা ফেরত পাবেন। কিন্তু এখন কাউন্টারে টিকিট বিক্রির পরই টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে দেয়া হয়। টাকা আর স্টেশনে থাকে না। অনলাইনের টিকিটেরও টাকা অনলাইনের মাধ্যমেই রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হয়। সেই টাকাও হাতে পাওয়া যায় না। ফলে যাত্রীদের টাকা ফেরত দেয়া যাচ্ছে না।

বিষয়টি চিঠি দিয়ে মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে জানিয়ে স্টেশন ব্যবস্থাপক বলেন, টাকা ফেরত দেয়ার জন্য সরকার থোক বরাদ্দ দিতে পারে না। এই নিয়েই একটু জটিলতা দেখা দিয়েছে। তবে যাত্রীদের হতাশ হওয়ার কারণ নেই। তাঁরা টাকা ফেরত পাবেন। তবে লকডাউন শেষ না হলে টাকার ব্যবস্থা করা যাচ্ছে না। লকডাউন চলা পর্যন্ত যাত্রীদের অপেক্ষা করতে হবে।

জেলা প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, রাজশাহী মহানগরে সর্বাত্মক লকডাউন ১১ জুন বিকাল থেকে শুরু হয়। প্রথমদফার লকডাউনের সময়সীমা ছিল ১৭ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত। এরই মধ্যে দ্বিতীয়দফা লকডাউন বাড়িয়ে ২৪ জুন পর্যন্ত করা হয়েছে।

এসবি/এসকে/এআইআর


  • 294
    Shares