জেমসের মামলায় বাংলালিংকের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে চার্জ শুনানি ৩ ফেব্রুয়ারি


সাহেব-বাজার ডেস্ক : ব্যান্ড তারকা মাহফুজ আনাম জেমস ও মান্নাম আহমেদ এবং হামিন আহমেদের অনুমতি ছাড়া গান ব্যাবহারের কপিরাইট আইনের মামলায় বেসরকারি মোবাইল ফোন কোম্পানি বাংলালিংকের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি চার্জগঠনের শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ বুধবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।

এর আগে এদিন আসামিদের পক্ষে মামলার অভিযোগ থেকে অব্যাহতির দুই মামলায় দুইটি আবেদন আদালতে দাখিল করেছেন আইনজীবীরা। কিন্তু এদিন বাদী পক্ষের আইনজীবীরা শুনানির প্রস্তুতি না থাকায় সময় প্রার্থণা করেন। ফলে আদালত ৩ ফেব্রুয়ারি চার্জগঠন ও অব্যাহতির আবেদনের শুনানির দিন ঠিক করেন। যা ওই আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউপর তাপস কুমার পাল নিশ্চিত করেছেন।

এদিন মামলাটির আসামি বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইরিক এ্যাস, কোম্পানিটির প্রধান কম্পিলিয়েন্স কর্মকর্তা এম নুরুল আলম, প্রধান কর্পোরেট রেগুলেটরি কর্মকর্তা তাইমুর রহমান ও হেড অব ভ্যাস আনিক ধর আদালতে হাজির ছিলেন। এর আগে গত শুনানি তারিখে আসামি পক্ষের আইনজীবীরা জানিয়েছিল, ব্যান্ড দুইটি তাদের কাছে ৫ কোটি করে ১০ কোটি টাকা দাবী করে চিঠি দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে তারা বসবেন। আশা করছেন তাদের মধ্যে সমঝোতা হয়ে যাবে। কিন্তু সে বিষয়ে এখনো কোনো সমঝোতা হয়নি বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ১০ নভেম্বর উল্লেখিত আসামিরাসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুইটি মামলা করে মাহফুজ আনাম জেমস ও মান্নাম আহমেদ এবং হামিন আহমেদ। ওইদিন আদালত তাদের জবানবন্দি গ্রহণ করে আসামিদের প্রতি সমন জারী করেন। মামলার অপর আসামি প্রধান ডিজিটাল কর্মকর্তা সঞ্জয় ভাগাশিয়া দেশ থেকে চলে যাওয়ায় তাকে পরে মামলা থেকে বাদ দিয়েছেন বাদীপক্ষ।

মানাম ও হামিন অভিযোগে বলেন, তাদের লেখা ও সুর করা ’নীলা’ ও ’ফিরিয়ে দাও’ গান দুইটি আসামিরা তাদের বাংলালিংক অনুমতি ছাড়াই ব্যবহার করে গ্রাহকদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা আয় করে আসছে। বাদীদ্বয় অর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

অন্যদিকে জেমসও তার গাওয়া ’দুখিনি দুঃখ করোনা’, ‘জিকির’, ‘লুটপাট’, ‘সুম্মিতা’, ও যার যার ধর্ম গান সম্পর্কেও একই ধরনের অভিযোগ করেন।

এসবি/এআইআর