চামড়া সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে কন্ট্রোল সেল খোলা হয়েছে

  • 3
    Shares

সাহেব-বাজার ডেস্ক : কোরাবানির পশুর চামড়া বেচাকেনা সংক্রান্ত যেকোন সমস্যা দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যে কন্ট্রোল সেল খোলা হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে কন্ট্রোল সেলটি পরিচালনা করা করা হবে। মন্ত্রণালয়ের এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পবিত্র ঈদুল আজহায় চামড়া সংরক্ষণ, ক্রয়-বিক্রয় ও পরিবহন সংক্রান্ত উদ্ভুত সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে কন্ট্রোল সেল খোলা হয়েছে। জরুরী প্রয়োজনে মোবাইল নম্বরগুলো হচ্ছে-০১৭১১ ৭৩৪২২৫, ০১৭১৬ ৪৬২৪৮৪, ০১৭১৩ ৪২৫৫৯৩, ০১৭১২ ১৬৮৯১৭।

প্রসঙ্গত, কোরবানির কাঁচা চামড়া নিয়ে কারসাজি বন্ধে এবারও দাম নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। তবে সরকার নির্ধারিত দামে চামড়া কেনা না হলে দায়ী ব্যবসায়ীদের কঠোর ব্যবস্থা নিবে সরকার। এছাড়া কাঁচা চামড়া সংরক্ষণে এবার লবণের সরবরাহ ও মজুদ বাড়ানো হয়েছে। লবণ নিয়ে কারসাজি বন্ধে অপর একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। এছাড়া চামড়া সংরক্ষণ ও মজুদে সারাদেশের লবণ ব্যবসায়ীদের একটি তালিকা হস্তান্তর করা হয়েছে। ফলে লবণ নিয়ে কারসাজি করা হলেও কঠোর শাস্তির আওতায় আসবেন ব্যবসায়ীরা। ইতোমধ্যে কাঁচা চামড়া কিনতে ট্যানারি মালিক, আড়তদার ও মহাজনদের প্রায় ৭০০ কোটি টাকার ঋণ দেয়া হয়েছে। এই তহবিল শুধু চামড়া কেনায় ব্যবহার করার বাধ্যবাধকতা দিয়েছে সরকার। এ বছর পবিত্র ঈদুল আজহার জন্য নির্ধারিত এ দর গত বছরের চেয়ে কম নির্ধারণ করা হয়।

এ বছর ঢাকার জন্য লবণযুক্ত কাঁচা চামড়ার দাম গরুর প্রতি বর্গফুট ৩৫ থেকে ৪০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ২৮ থেকে ৩২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে, যা গত বছর ঢাকায় ছিল ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। আর ঢাকার বাইরে ছিল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। অন্যদিকে, খাসির চামড়া সারা দেশে প্রতি বর্গফুট ১৩ থেকে ১৫ টাকা ও বকরির চামড়া ১০ থেকে ১২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত বছর খাসির চামড়া ১ থেকে ২০ টাকা ও বকরির চামড়া ১৩ থেকে ১৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচা চামড়ার দাম ও সামগ্রিক প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য সংগঠন, ট্যানারি এ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে আলাপ করে এ দাম নির্ধারণ করা হয়।

এসবি/এআইআর


  • 3
    Shares