গরম পানির ভাপ নিলে কি করোনা মুক্ত হয়?


সাহেব-বাজার ডেস্ক : করোনাভাইরাস সংক্রমণে একের এক দেশ মৃত্যুপুরীতে রূপ নিয়েছে। কোনোভাবেই প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না এই ঘাতক ভাইরাসকে। কোভিড-১৯ রোগের উপসর্গ থাকলে কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করে প্রাথমিকভাবেই মুক্ত হওয়া যাবে এর সংক্রমণ থেকে।

করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হলে চিকিৎসকরা বলছেন গরম পানির ভাপ নিতে। কেউ বা লবণ পানির গার্গল করতে বলছেন। ভাপ নিলে আর গার্গল করলে কি আদৌ করোনা সেরে যায়?

গার্গল করলে করোনা রোগ সেরে যাবেই, এখনও পর্যন্ত এমন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে চিকিৎসকেদের বক্তব্য, গলা দিয়ে অনেক ক্ষেত্রে শরীরে ঢোকে ভাইরাস। রক্তে তা মিশে যাওয়ার আগে গরম পানির ভাপ খানিকটা সাহায্য করতে পারে গলাতেই তা নষ্ট করে দিতে।

চিকিৎসকদের মতে, করোনায় সংক্রমিত মানুষের শরীর দুর্বল থাকে। এ সময়ে শুধু করোনাভাইরাস নয়, অন্যান্য ব্যাকটেরিয়া ভাইরাসও অনেক সময়ে সুযোগ বুঝে শরীরে ঢোকার চেষ্টা করে। গরম পানির ভাপ নিলে এবং গার্গল করলে সে সব থেকে খানিক মুক্তি মেলে। ফলে করোনায় অনেকটাই কাজ দেয় গরম পানির ভাপ আর গাগর্ল।

তবে ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে গলায় যদি প্রদাহ সৃষ্টি হয়, তবে তা অনেক কমে যায় গরম পানির তাপে। কিন্তু গার্গল করলে যদি অন্যদের মধ্যে ভাইরাস ছড়ায়, তবে কি তা করা উচিত? চিকিৎসকদের বক্তব্য, সংক্রমিত ব্যক্তি নানা ভাবেই ভাইরাস ছড়াতে পারেন। তার কাছে যাওয়া ঠিক নয়। ফলে গার্গল করলে আলাদা ভাবে তা আতঙ্কের হবে না।

করোনা রোগ প্রতিরোধে বিজ্ঞানীদের তথ্য বলছে, ঘরে বসেই গরম পানিতে ইথানলের ভাপ নিলে এবং মৃদু গরম পানিতে ইথানল মিশিয়ে কুলকুচি করে মিলতে পারে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে মুক্তি।

করোনাভাইরাসে যে লিপিড জাতীয় পদার্থ থাকে, সেটা যদি কোনোভাবে ধ্বংস করে দেওয়া যায়, তাহলে কিন্তু ভাইরাসের আর কোনো অস্থিত্ব থাকে না। বিজ্ঞানীরা ল্যাবরেটরিতে টেস্ট করে দেখেছেন, ৬০ বা ৭০ শতাংশ ইথানলে ভাইরাসটা সংম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে যায়।

কীভাবে ইথানলের ভাপ এবং কুলকুচি করতে হবে তা-ও জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। প্রথমে একটি কাপে ৬০ মিলি ফুটন্ত গরম পানি ঢালুন। এরপর এতে অ্যাসিটোন ফ্রি খাঁটি ঘন ৪০ মিলি ইথানল (ইথাইল অ্যালকোহল ৯৯.৯%) ঢেলে ৩০ সেকেন্ড থেকে এক মিনিট পর্যন্ত নাক দিয়ে ওই বাষ্প টানতে থাকুন।

ইথানল বাষ্প টানার ঠিক ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ২৫ মিলি মৃদু গরম পানিতে ২৫ মিলি ৬০ শতাংশ ইথানল মিশিয়ে ৩০ সেকেন্ড কুলকুচি/গড়গড়া করুন পরপর দুইবার। এরপর স্বভাবিক পানি দিয়ে হালকা কুলকুচি করে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পদ্ধতি দিনে তিন থেকে চারবার অনুসরণ করতে হবে। একইসঙ্গে প্রতিবার চার-পাঁচ মিনিট পর স্বাভাবিক পানি দিয়ে গড়গড়া করে মুখ ধুয়ে নেওয়ার কথাও বলেছেন এ ভাইরাস বিশেষজ্ঞ।

গবেষকরা বলছেন, ইথানল বাষ্পের ইনহেলেশন এবং কুলকুচি আরএনএ ইনভেলেপড ভাইরাসের বিরুদ্ধে খুবই ভালো কাজ করে। বিজ্ঞানীরা প্রমাণ পেয়েছেন ইথানল একাই যথেষ্ট আরএনএ ইনভেলেপড ভাইরাসগুলোর লিপিড পদার্থ সহজেই ধ্বংস করতে।

করোনা আক্রান্তরা গার্গল বা হালকা ভাপ নেওয়া জরুরি বলে মনে করেন চিকিৎসকেরা। কারণ, তা ভাল থাকতে মোটামুটি সাহায্য করবে রোগীকে। এখনও পর্যন্ত এরকম কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি যে গরম পানির ভাপ ইনহেল করলে তা শরীরের ভিতরে গিয়ে কোভিড ১৯-এর ভাইরাসকে ধ্বংস করতে পারবে। তবে এই প্রক্রিয়া যে ফুসফুসের পক্ষে ক্ষতিকর হতে পারে।

অতিরিক্ত গরম পানির ভাপ ইনহেল করলে তা শরীরের ভিতরে গিয়ে শ্বাসনালীতে ছ্যাঁকা দেবে। একই সঙ্গে শ্বাসনালী এবং খাদ্যনালীর সংযোগস্থল, যাকে আমরা গলবিল বলে থাকি, তাও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

 

এসবি/এমই