কবিতা: জুয়াড়ি

  • 1
    Share

মনিরুজ্জামান শেখ রাহুল

 

ক্রিকেট হোক বা ফুটবল
সেটা বিনোদন মাত্র,
কেন সেখানে প্রবেশ করে
অর্থ বাজির মন্ত্র?

খেলাতে অর্থকে বাজি রেখে
তোমরা সৃষ্টি ধ্বংসকারী,
মানবকূলে জন্ম নিয়েও
হয়েছো তোমরা জুয়াড়ি।

ক্রীড়াপ্রেমীর এই খেলাকে
বিনষ্ট করেছো তোমরা,
বিবেককে করেছো ধ্বংস, গায়ে
চড়িয়ে মানুষের চামড়া।

তাস বা গুটি খেলেও তোমরা
করো অর্থ উপার্জন,
স্রষ্টার সম্মুখেই নিজ
চরিত্রকে করো বিসর্জন।

ঋণ পরিশোধে নিজ ব্যবহার্য
সবকিছু রাখো গচ্ছিত,
এরূপ কর্মে মনুষ্যত্ব
হয়ে যায় মূর্ছিত।

তোমরা কেমন মানব,
ভাবনা তোমাদের কেমন?
শয়তানেরা সর্বকালে
হানাহানি করে যেমন।

ঋণের বোঝা কাঁধ থেকে
মাথায় উঠে যখন,
জামি-বাড়ি বিক্রি করে
দেয় জুয়াড়িগণ।

জুয়ার নেশা এরপরও
ভর করে তাদের মাথায়,
জুয়া নিত্য প্রহার করে
কন্টকের ন্যায় কাটায়।

মস্তকে যখন চড়ে বসে
সুদের সাথে ঋণ,
যন্ত্রের মতো সংসার চলে
সুখ-শান্তি বিহীন।

ঋণের বোঝার চোটে তারা
যদি যায় দিশাহীন বাঁকে,
এমতাবস্থায় ঘরের বউকে
তারা বন্ধক রাখে।

ছিঃ! কেমন ঘৃণিত, কেমন
অসৎ এই কর্ম,
যেই কু-কর্ম বিনষ্ট করে
মনুষ্যত্বের মর্ম।

এই দুঃখজনক কাজে
সমাজ হয় ব্যধিগ্রস্থ,
মানব চরিত্রকে করে তা
নির্মমভাবে পর্যুদস্ত।

যদি জানি, আমি কে,
কি আমার দায়িত্ব,
তবে জাগ্রত হবে
আমার মনুষ্যত্ব।

জুয়া, মাদকসহ সকল
অপরাধ থেকে থাকলে দূরে,
প্রকৃতিতে বাঁশি বাঁজবে
সাম্য-ভাতৃত্বের সুরে।

এসবি/এমই


  • 1
    Share