এক মুখে দুই কথা বললেন ছাত্রলীগ সম্পাদক


নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘ফেনসিডিল সেবনের’ ভিডিও ফাঁস নিয়ে এক মুখে দুই কথা বলেছেন রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমি। তিনি দাবি করেছেন, যে ভিডিওটি ফাঁস হয়েছে সেখানে আসলে তিনি কোমল পানীয় ‘স্পিড’ পান করছিলেন। পরে আবার বলেছেন, ছাত্রসমাজের অবক্ষয় তুলে ধরতে তিনি একটি শর্টফিল্মে অভিনয় করেছিলেন। ওই দৃশ্যটি শর্টফিল্মের। অবশ্য শর্টফিল্মে ওই ধরনের কোন দৃশ্য নেই বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম রানা ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমির বিরুদ্ধে সম্প্রতি নানা অভিযোগ সামনে এসেছে। মোবাইলে গোপনে ধারণ করা সাধারণ সম্পাদকের ‘ফেনসিডিল সেবনের’ ভিডিওচিত্র ফাঁস হয়েছে। ফাঁস হয়েছে দলীয় নারী কর্মীর সঙ্গে সভাপতি সাকিবুল ইসলামের ফোনালাপের একটি অডিও। সেখানে টাকা ও পদের লোভ দেখিয়ে নারী কর্মীর সঙ্গে যৌন কেলেঙ্কারীর ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া দুজনের বিরুদ্ধে আরও নানা ধরনের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, রাজশাহী কলেজ ছাত্রদলের নেতা থেকে ছাত্রলীগ সভাপতি হয়েছেন সাকিবুল।

এসব নিয়ে বিব্রত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও। অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করেছে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ। সাত কার্যদিবসের মধ্যে সুপারিশসহ তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে। এ অবস্থায় অভিযোগের ব্যাখা দিতে রোববার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। নগরীর অলোকার মোড়ে জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, কাটাখালী পৌর আওয়ামী লীগের নেতা আবু সামার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে সম্প্রতি দুপুরের খাবারের পর তিনি স্পিড পান করছিলেন। ওই ভিডিও ধারণ করে তা ফেনসিডিল সেবন বলে প্রচার চালাচ্ছে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা। আবু সামার কার্যালয়ে ফেনসিডিল কেন, ধূমপানের সুযোগ নেই বলে তিনি দাবি করেন।

এ সময় একজন সাংবাদিক বলেন, ভিডিওতে তাঁর হাতে যে বোতল দেখা যাচ্ছে সেটি ফেনসিডিলেরই বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তখন জাকির বলেন, সম্প্রতি তিনি ছাত্রসমাজের অবক্ষয় নিয়ে বানানো একটি শর্টফিল্মে অভিনয় করেছেন। তাহলে ওই ভিডিওটি সেই শর্টফিল্ম থেকে নেওয়া হয়েছে। জাকির জানান, ওই শর্টফিল্মে ফেনসিডিলের বোতল নিয়েই অভিনয় করা হয়েছিল। এটি সব মহলে প্রশংসিত হয়েছিল। তবে জাকির অভিনিত শর্টফিল্মে ফাঁস হওয়া ভিডিওর মতো কোন দৃশ্য নেই বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে জাকির হোসেন তাঁর বিরুদ্ধে তোলা অন্য সব অভিযোগও অস্বীকার করেন। সভাপতি সাকিবুল ইসলামও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন। আওয়ামী পরিবার থেকে উঠে আসা ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে নিজেকে দাবি করে সাকিবুল বলেন, সামনে নির্বাচন। তাই ছাত্রলীগকে নিষ্ক্রিয় করতে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। নারী কর্মীর সঙ্গে ফাঁস হওয়া ফোনালাপের অডিও রেকর্ডটির পুরোটিই ‘সুপার এডিট’ বলেও তিনি দাবি করেন।

এসবি/এসএসকে/জেআর