ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে কর্মীদের যেভাবে অনুপ্রাণিত করবেন


সাহেব-বাজার ডেস্ক : একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে অফিসের কর্মীদের যথাযথভাবে পরিচালিত করা আপনার দায়িত্ব। যথাযথভাবে কাজ আদায় করে নিতে কর্মীদের সন্তুষ্টও রাখতে হবে। আসুন জেনে নিই, মোটিভেট করতে উপায়গুলো-

১. ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে আপনার প্রতিটি কথা, কাজ, পরিকল্পনা বাস্তবায়ন, ব্যবস্থাপনার গুণাগুণ, ব্যক্তিগত ও মানবিক গুণাগুণ- সবকিছুই অনুসরণ করা হচ্ছে। ফলে আপনার বলা কথা, আদেশ, নির্দেশনা, পরামর্শ এসব ঘিরেই কিন্তু তাদের কার্যক্রম, পদচারণ ও স্বপ্ন দেখা। সুতরাং মিথ্যে আশ্বাস কখনোই দেবেন না।

২. অনেক ক্ষেত্রে মিথ্যে আশ্বাস দিয়েও যথাসময়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে পারেন। মিথ্যে আশ্বাস অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দ্রুত সমাধান আনলেও ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠানের চলার পথে আরও গভীর ক্ষত তৈরি করে।

৩. কর্মীদের উপর যদি আপনার দখল ও আস্থা থাকে, তাহলে আসল কথা খুলে বলুন। তাদের সাহায্য চান। মিথ্যে আশ্বাস দেওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। তাদের ভালোমন্দ দেখতে পারার যোগ্যতাও আপনার দক্ষতার মাপকাঠি।

৪. কর্মীদের দক্ষ ও যোগ্য সদস্যদের ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে আপনার সাধ্যমতো চেষ্টা করুন। সঠিক মূল্যায়নের পাশাপাশি তাদের বেতন, ভাতা, ছুটিসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা প্রদানে দায়িত্বশীল হোন। এতে তাদের মধ্যে আপনার গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি পাবে।

৫. অধীনস্থ সহকর্মীদেরও আছে নানা চাহিদা এবং আপনি জানেন, এই চাহিদা যুক্তিসংগত, অথচ কিছুই করার নেই। এ অবস্থায় আপনাকে মাঝখানে দাঁড়িয়ে সামলাতে হবে উভয় পক্ষকেই।

৬. কর্মীদের মোটিভেটেড রাখার অনেক উপায় আছে। এর মধ্যে সবচেয়ে কার্যকর উপায় হচ্ছে, নিজের অবস্থান ও ব্যক্তিত্বকে ধরে রেখে আসল দলনেতার মতো তাদের সমস্যাগুলোকে বোঝার চেষ্টা করে সমাধান করা।

৭. অন্যায় বা ভুলের যেমন শাস্তির বিধান আছে, তেমনি ভালো কর্মীর পুরস্কারও আছে। যার যার পাওনা তাকে বুঝিয়ে দিতে সঠিক সময় ও স্থান নির্বাচন করুন। এতে আপনার উদ্দেশ্য অনেক সফলভাবে বাস্তবায়ন হবে। মাসিক বা সাপ্তাহিক সভাও একটি সঠিক স্থান হতে পারে।

৮. কর্মীদের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক বিপদ আপদে খোঁজখবর নিন। মানসিকভাবে পরামর্শ দিয়ে তাদের শক্তি যোগান। তাদের প্রতি নিজেকে আরও আস্থাবান করে তুলুন। এতে আরও বেশি আপনার সহায়ক হয়ে উঠবেন তারা।

এসবি/এআইআর