Ad Space

তাৎক্ষণিক

ইচ্ছেপরি ।। শুভেচ্ছা রহমান

ভারী স্কুলব্যাগ ঘাড়ে নিয়ে বাসায় ঢুকল ক্লান্ত অরণী। এখন একটু বিশ্রামের পর আবার সামি ভাইয়া পড়াতে আসবে। ইশ! যদি পৃথিবীতে পড়ালেখা বলে কিছু না থাকত ভাবল অরণী। না না। কেবল একটা দিন যদি পেত সেদিন অরণী নিজের মনের মত করে গান গাইতে, ঘুরতে, মনের মত ছবি আঁকতে পারত। মায়ের ডাকে ভাবনায় ছেদ পড়ল তার। “কি বিস্তারিত…

কাজী মোহিনী ইসলাম-এর পাঁচটি ছড়া

আজগুবি গল্প   আজগুবি গল্প নয় মোটে অল্প ব’লে চলে দিনভর গিয়ে গিয়ে ঘরঘর   সুখ পেলে বসে কাঁদে চুলগুলো কষে বাঁধে দুঃখ পেলে হা হা হাসে থেকে থেকে খুব কাশে   চিনি কলা চিড়ে দই ভালোবাসে খেতে খই কথা কাজে একতিল পাবে নাতো খুঁজে মিল   আজকাল লোকটায় ঘন ঘন পান খায় গুন গুন বিস্তারিত…

আলুম ।। আহমেদ রিয়াজ

বনে থাকতে থাকতে একঘেঁয়ে লেগে গিয়েছে। এবার কিছুদিনের জন্য শহর থেকে ঘুরে আসা যাক। যেই ভাবা সেই কাজ। শহরের দিকে রওনা হলো হালুম। তবে শহরে কার কাছে যাবে? শহরে ওর এক মামাতো ভাই থাকে। ওই মামাতো ভাইয়ের কাছেই চলল হালুম। দিনের বেলা কোনো ঝোপের আড়ালে লুকিয়ে থাকে। রাতের বেলা পথ চলে। পথের দূরত্বও কম নয়। বিস্তারিত…

প্রত্যয় হামিদ-এর ছড়া

ছড়ার ছড়া গাছের পাতা একটা ছড়া একটা ছড়া আকাশ, একটা ছড়া দূর পাহাড় (আর) একটা ছড়া বাতাস। ফুলে ফুলে ছড়ার সুবাস ছড়া ঘাসের শিশির, পাখির পাখায় ছড়ার সারি ছড়া কিচির মিচির। শিশুর মুখে হাসি ছড়া ছড়া দাদুর ছড়ি, বইয়ের পাতায় কত্ত ছড়া ছড়ায় ছড়ায় পড়ি। ছন্দ আলোয় চন্দ্র ছড়া ছড়া নদীর ঢেউ, ছড়াগুলো ছড়িয়ে আছে বিস্তারিত…

পিঁপড়া ও ঘাসফড়িঙ

মূল : উইলিয়াম সমারসেট মম  ।।  ভাষান্তর : রাহেল রাজিব শৈশবেই আমি লা ফনটেইনের নীতিগল্পগুলো শুনেছি এবং প্রতিটি গল্পের নীতিকথা আমাকে বেশ ভাবাতো। ‘পিঁপড়া ও ঘাসফড়িঙ’ গল্পটি পড়ার পর বুঝেছি, এই অসম্পূর্ণ পৃথিবীতে পরিশ্রমীদের পুরস্কৃত ও অলসদের তিরষ্কৃত হতে হয়। এই গল্পে (বিনীতভাবে এই গল্পের সারাংশ জানাতে চাই) পিঁপড়া যখন গ্রীষ্মে খাদ্য সঞ্চয়ে ব্যতিব্যস্ত, তখন বিস্তারিত…

স্কুল ছুটির শেষে হিলিয়াম বেলুনের পিছে ।। তুহিন দাস

স্কুলটিচার পম্পা দিদিমণি। খাতা দেখছিলেন। আজ ক্লাশে ‘আমার শখ’ নিয়ে রচনা লিখতে দিয়েছেন। সবাই লিখেছে মন দিয়ে, দুষ্টুমি করেনি খুব একটা। কেউ লিখেছে তার শখ ঘুরে বেড়ানো, কেউ বা লিখেছে তার শখ ‘বাগান করা’, ‘ডাকটিকিট জমানো’, ‘কয়েন জমানো’। স্কুলের পড়ার বইয়ে আছে ‘বাগান করা’। অন্যগুলো বাচ্চারা বাড়িতে বা কোচিংয়ে পড়েছে। সোনাইয়ের খাতা দেখে চমকে উঠলেন বিস্তারিত…

শিশুসাহিত্য

টাপুর-টুপুর ডেস্ক : শিশুসাহিত্য  শিশুদের উপযোগী সাহিত্য। সাধারণত ৬-১০ বছর বয়সী শিশুদের মনস্তত্ত্ব বিবেচনায় রেখে এ সাহিত্য রচনা করা হয়। এই বয়সসীমার ছেলেমেয়েদের শিক্ষামূলক অথচ মনোরঞ্জক গল্প,  ছড়া, কবিতা,  উপন্যাস ইত্যাদিকেই সাধারণভাবে শিশুসাহিত্য বলে। শিশুসাহিত্যের প্রধান বৈশিষ্ট্য এর বিশেষ বক্তব্য, ভাষাগত সারল্য, চিত্র ও বর্ণের সমাবেশ, হরফের হেরফের প্রভৃতি কলাকৌশলগত আঙ্গিক। শিশুসাহিত্যের বিষয়বৈচিত্র্য অফুরন্ত। এতে বিস্তারিত…

শিশু সাহিত্যে সুকুমার রায়

সাহেব বাজার ডেস্ক : সুকুমার রায় জন্ম ১৮৮৭ সালে এবং মৃত্যু ১৯২৩। বাঙালী শিশুসাহিত্যিক ও ভারতীয় সাহিত্যে “ননসেন্স রাইমের” প্রবর্তক। তিনি একাধারে লেখক, ছড়াকার, শিশুসাহিত্যিক, রম্যরচনাকার, প্রাবন্ধিক ও নাট্যকার। তিনি ছিলেন জনপ্রিয় শিশুসাহিত্যিক উপেন্দ্রকিশোর রায়চেীধুরীর সন্তান এবং তাঁর পুত্র খ্যাতিমান চলচ্চিত্রকার সত্যজিত রায়। তাঁর লেখা কবিতার বই আবোল তাবোল, গল্প হযবরল, গল্প সংকলন  পাগলা দাশু, বিস্তারিত…