জানুয়ারি ১৮, ২০১৮ ৩:৫১ পূর্বাহ্ণ

Home / জাতীয় / পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান নদীতে নামছে ১৫ ডিসেম্বর

পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান নদীতে নামছে ১৫ ডিসেম্বর

সাহেব-বাজার ডেস্ক : পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান নদীতে নামছে ১৫ ডিসেম্বর মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ২য় স্প্যান পদ্মায় নামছে ১৫ ডিসেম্বর। ভাসমান ক্রেনের সাহায্যে স্প্যানটি জাজিরা প্রান্তের ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের কাছে নেয়া হবে। সেখানে পিলারের বেয়ারিংয়ের ওপর বসিয়ে দেয়া হবে স্প্যানটি। বিজয় দিবসের আগে না হলেও বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে ২য় স্প্যানটি।

দায়িত্বশীল প্রকৌশলীরা জানান, আরও দুটি স্প্যান বসানোর মত খুঁটি (পিয়ার) প্রস্তুত হয়েগেছে। কিন্তু খুঁটির ওপরে স্প্যানটি বসানো উপযোগী করা নিয়ে কিছুটা বিলম্ব হয়ে যায়। কারণ ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে যেভাবে স্প্যানটি বসিয়ে দেয়া হয়েছে এখন তার চেয়ে আরও সময় বেশি লাগছে। ৩৮ নম্বর খুঁটির সাথে দ্বিতীয় স্প্যানটির এক প্রান্ত যুক্ত করতে হচ্ছে। আর স্প্যানটির অপর প্রান্ত বসছে ৩৯ নম্বর খুঁটিতে। একই ভাবে ৩য় স্প্যানটির (৭সি) একপাশে ৩৯ নম্বর পিলারে এবং অপর প্রান্ত বসবে ৪০ নম্বর পিলারে। এই ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারই তৈরি সম্পন্ন। কিন্তু এর মাথায় ক্যাপের সাথে সেট করা নিয়েই গ্রাউন্ডিং করা হচ্ছে এখন।

তাই ১০ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ১৫ ডিসেম্বর স্প্যান রওনা হচ্ছে। এর পর এটি বাসাতে আরও কয়েকদিন লেগে যাবে। তবে কবে নাগাদ ২য় স্প্যানটি বসানো হবে তা নিশ্চিত জানাতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে তারা নিশ্চিত করেছেন বিজয়ের মাসেই দ্বিতীয় স্প্যান বসছে। এর তৃতীয় স্প্যান বসবে নতুন বছরে। জানুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে তৃতীয় স্প্যানটি বসানোর সম্ভাবনার কথা জানায় কর্তৃপক্ষ।

প্রায় ৩ হাজার টন ওজনের ‘৭বি’ নম্বর স্প্যানটি ৩৬শ’ টন ধারণ ক্ষমতার বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ভাসমান ক্রেনের সাহায্যে পদ্মা নদী পাড়ি দিবে। এ লক্ষ্যে মাওয়া প্রান্তের কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে ‘৭বি’ নম্বরের স্প্যানটি পুরোপুরি প্রস্তুত করা হয়েছে।

এসবি/এমআর/এমএইচ

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

সূর্যসেন-প্রীতিলতার স্মৃতিঘেরা স্থান পরিদর্শন করলেন প্রণব

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি চট্টগ্রামে মাস্টারদা সূর্যসেন ও প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের স্মৃতিবিজড়িত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *