ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭ ৭:৫৭ অপরাহ্ণ

Home / রাজশাহীর সংবাদ / রাবিতে সাংবাদিক হত্যাচেষ্টার আসামির বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

রাবিতে সাংবাদিক হত্যাচেষ্টার আসামির বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

রাবি প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) কর্মরত ডেইলি স্টারের প্রতিনিধি আরাফাত রহমান হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামির বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করেছে ছাত্রলীগ। রাবি শাখা ছাত্রলীগের সুপারিশের ভিত্তিতে ওই নেতাসহ দুইজনের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়।

এদিকে সাংবাদিক মারধরকারী ছাত্রলীগ নেতাকে আইনের আওতায় না এনে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সংবাদিকরা।

সাংবাদিকের ওপর হামলাকারী ও হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি হলেন- রাবি শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন। বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার হওয়া অন্যজন রাবি ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন। অন্যের হয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়লে সাব্বিরকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, সাব্বির হোসেন (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রীলগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা) ও মাহমুদুর রহমান কানন (তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রীলগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা)-এর উপর আরোপিত বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হলো।’

গত ১০ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে বাস ভাঙচুরের ছবি তুলতে গেলে ডেইলি স্টারের রাবি প্রতিনিধি আরাফাত রহমানকে বেধড়ক মারধর করে ছাত্রলীগের ৫-৭ নেতাকর্মী। এর মধ্যে মাহমুদুর রহমান কানন আরাফাতে চোখে আঘাত করে। গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পরে সংবাদমাধ্যমে মারধরের খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পর ওইদিন সন্ধ্যায় মাহমুদুর রহমান কাননসহ দুইজনকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় কমিটি। এছাড়া ওই রাতেই হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ছাত্রলীগের চার নেতার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৮-১০ জনকে আসামি করে নগরীর মতিহার থানায় মামলা দায়ের করে সাংবাদিক আরাফাত রহমান। মাহমুদুর রহমান কানন ওই মামলার প্রধান আসামি।

অন্যদিকে ১৮ জুলাই রাজশাহীর মোহনপুরে ডিগ্রি (পাস) পরীক্ষায় অন্যের হয়ে পরীক্ষা (প্রক্সি) দিতে গিয়ে বান্ধবীসহ গ্রেফতার হন রাবি শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন। ওই ঘটনায় তিনদিন পর ২১ জুলাই সাব্বির হোসেনকে বহিষ্কার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে এখনও মামলা চলছে।

জানতে চাইলে রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করায় তাদের বহিষ্কার করা হয়েছিল। শৃঙ্খলা ভঙের মতো কাজ আর করবে না এমন অঙ্গীকার করায় রাবি ছাত্রলীগ তাদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের সুপারিশ করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় কমিটি তাদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করেছে।

অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ার পরেও বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের সুপারিশ করার বিষয়ে তিনি বলেন, ছাত্রলীগ এ ধরনের কাজকে কখনোই প্রশ্রয় দেয় না। তারা নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে সংশোধিত হয়েছে। তাই বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের সুপারিশ করা হয়েছে।

১৮ জুলাই রাজশাহীর মোহনপুরে ডিগ্রি (পাস) পরীক্ষায় অন্যের হয়ে পরীক্ষা (প্রক্সি) দিতে গিয়ে আটক হন শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন। ওই ঘটনায় তিনদিন পর ২১ জুলাই সাব্বির হোসেনকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা বহির্ভূত আর কোন কাজ করবে না বলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে প্রতিশ্রুতি দেয়ায় তাদের বিষয়টি বিবেচনা করে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় বহিষ্কৃত দুইজনের মধ্যে অন্যজনের বহিষ্কারাদেশ বলবৎ রয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিক নেতারা। শনিবার বিকেলে রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটি, সাংবাদিক সমিতি ও প্রেসক্লাব এক যৌথ বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় দায়ের করা হত্যাচেষ্টার মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছেও ওই সাংবাদিক অভিযোগ জানিয়েছিল। সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় সুস্পষ্ট প্রমাণের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ রাবি শাখার দুই নেতাকে বহিষ্কার করেছিল। মামলা বিচারাধীন অবস্থায় মামলার প্রধান আসামি মাহমুদুর রহমান কাননের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের ঘটনাটি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এতে করে অপরাধীরা উৎসাহিত হবে।

বিবৃতিতে আরও উল্লেখ করা হয়, অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িত দলীয় নেতাকর্মীদের আইনের আওতায় না এনে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের মাধ্যমে তাদের প্রশ্রয় দেয়া হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগের কাছ থেকে এ ধরনের অবিবেচনাপ্রসূত সিদ্ধান্ত সাংবাদিক সমাজ প্রত্যাশা করে না।

এসবি/এমএন/এসএস

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

নাটোরে বৃদ্ধ দম্পতির রহস্যজনক মৃত্যু, দুই ছেলে আটক

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের লালপুরের কদিম চিলান গ্রামে স্বামী আব্দুস সোবাহান (৭৫) ও স্ত্রী মানিকজান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *