নভেম্বর ২৩, ২০১৭ ১:৪০ অপরাহ্ণ

Home / রাজশাহীর সংবাদ / গৃহবধূর আত্মহত্যা, মিমাংসায় মূল্য নির্ধারণ!

গৃহবধূর আত্মহত্যা, মিমাংসায় মূল্য নির্ধারণ!

বাগমারা প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় যৌতুকের বলিতে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে এক গৃহবধু। গৃহবধুর আত্মহত্যায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা মিমাংসায় মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে। পাপিয়া সুলতানা বীথি (১৯) নামে গৃহবধু আত্মহত্যায় মূল্য ২লাখ ৪০হাজার টাকা নির্ধারণ করে নিষ্পতি করা হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, কোন মামলা না করার জন্য ভবানীগঞ্জ পৌর মেয়র আবদুল মালেক মণ্ডল ও মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসলাম আলী আসকান সদস্যদের নিয়ে কৌশলে এই মিমাংসা করেন।

তবে এই মিমাংসায় রাজি হননি বীথির বাবা বেলাল উদ্দিন। তিনি কোন কিছু বোঝার আগেই এই মিমাংসা শেষ করে দেন ভবানীগঞ্জ পৌর মেয়র ও মাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান।

বীথির বাবা বেলাল উদ্দিনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। বীথির মামা আবদুল ওয়াহাব বলেন, ‘২ লাখ ৪০ হাজার টাকায় মিমাংসা হলেও এখন পর্যন্ত সেই টাকা আমাদের নিকট হস্তান্তর করা হয়নি। কবে পাওয়া যাবে সেটাও বলা সম্ভব হচ্ছে না।’

মিমাংসার বিষয়ে জানতে চাইলে পৌরসভার মেয়র আবদুল মালেক মণ্ডল বলেন, উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে মিমাংসা করা হয়েছে। মেয়ের বাবাও এই মিমাংসায় রাজী হয়েছেন। মিমাংসায় প্রাপ্ত অর্থ আমার কাছে আছে।

লাশের মূল্য নির্ধারণ কেন? এমন প্রশ্ন করলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

বীথির মামা আবদুল ওয়াহাব জানান, প্রায় ১০ মাস আগে বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার একডালা এলাকার বেলাল উদ্দিনের মেয়ে বিথীর সাথে একই উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের কাঠালবাড়ি গ্রামের আহম্মেদের পুত্র জুয়েলের (২৫) সাথে বিয়ে হয়। বিয়েতে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু সেসময় বীথির বাবার পক্ষে ১ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়। বাকি থেকে যায় ৫০হাজার টাকা।

বিয়ের পর থেকেই স্বামী জুয়েল ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুকের জন্য গৃহবধূ বিথীর উপর শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালায়। যৌতুকের বাঁকি ৫০ হাজার টাকা বাবার বাড়ি থেকে আনার জন্য শনিবার দিবাগত রাতে জুয়েল ও তার পরিবারের সদস্যরা গৃহবধূ বিথীকে মারপিট করে।

বাবার বাড়ী না গিয়ে রোববার ভোরে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে বীথি। এক পর্যায়ে তার অবস্থার অবনতি হলে স্বামীর পরিবারের লোকজন বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার বীথিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ জানান, ওই ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। মৃত্যুর ঘটনা ২ লাখ ৪০ হাজার টাকায় নিষ্পত্তির বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না বলেও জানিয়েছেন।

এসবি/এমই/এসএস

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

লুমের চাকা ঘুরল ১৫ বছর পর

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী রেশম কারখানার লুমগুলো সর্বশেষ চলেছিল ২০০২ সালের ৩০ নভেম্বর। সরকার কারখানা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *