নভেম্বর ২০, ২০১৭ ১:৩৪ অপরাহ্ণ

Home / রাজশাহীর সংবাদ / রাবির দুই কর্মচারিকে পেটালো পুলিশ

রাবির দুই কর্মচারিকে পেটালো পুলিশ

রাবি প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নওহাটা রুটের বাস চালক ও তার সহযোগীকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে পবা থানার উপ পরিদর্শক মেহেরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ মারধরের ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

মারধরের শিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চালক সাইফুল ইসলাম ও তার সহযোগী আশিকুর রহমান হিরো। তাদেরকে আহতাবস্থায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন দফতরের সুপারভাইজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘নওহাটা কলেজ মোড়ে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থামিয়ে শিক্ষার্থীদের বাস থেকে নামাচ্ছিল চালক সাইফুল। এসময় সাধারণ পোশাকে মোটরসাইকেলে দুই পুলিশ সদস্য এসে ‘তুই’ সম্বোধন করে তাকে গাড়ি সরাতে বলে।’

‘চালক সাইফুল শিক্ষার্থীদের নেমে যাওয়ার আগে বাস সরালে তার সমস্যা হবে জানালে এসআই মেহেরুল ইসলামসহ দুই পুলিশ চালকের সহযোগী হিরোকে মারধর শুরু করে। এসময় চালক সাইফুল হিরোকে বাঁচাতে গেলে তাকেও মারধর করে পুলিশ সদস্যরা।’

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমি মারধরের ঘটনা শুনেছি। তবে সেখানে কার কী ভূমিকা ছিল, তা জানি না। মতিহার থানার ওসিকে বিস্তারিত খোঁজ নেয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। আর পরিবহন স্টাফদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মারধরের ঘটনা অস্বীকার করে পবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল চক্রবর্তী বলেন, ‘এসআই মেহেরুল মারধর করেনি। উনারাই মেহেরুলকে বাড়ি দিয়ে প্যান্ট ছিঁড়ে দিয়েছে। তখন ওই এলাকার লোকজনই ওদেরকে মারধর করেছে।’

ওসি বলেন, ‘রাস্তার মাঝখানে গাড়ি রেখে ফোনে কথা বলছিল বাসচালক। তখন যানজটের সৃষ্টি হয়। মেহেরুল গিয়ে গাড়িটা একদিকে সাইড করতে বললে বাসের চালক ও তার সহযোগী লাঠি নিয়ে বের হয়। পরে এলাকার লোকজন তাদেরকে মারধর করে। এসময় পুলিশই তাদেরকে উদ্ধার করে।’ তবে পুলিশ সিভিল ড্রেসে ছিল বলে স্বীকার করেন তিনি।

এসবি/এমএন/এমই

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

অমানবিক পরিশ্রমে স্কুলের দপ্তরিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সবার আগে গিয়ে তালা খুলে ঝাড়-মোছ শেষে তার ঘন্টাতেই শুরু হয় স্কুলের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *