Ad Space

তাৎক্ষণিক

সাংবাদিক শিমুল হত্যার প্রতিবাদে শাহজাদপুরে হরতাল চলছে

ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৭

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : শাহজাদপুর পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হালিমুল হক মিরুর গুলিতে দৈনিক সমকালের প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুল নিহতের প্রতিবাদে উপজেলায় আধা-বেলা হরতাল চলছে।

হরতালের সমর্থনে শনিবার ভোর থেকে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। তবে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সকাল থেকেই পৌর শহরের সকাল দোকানপাট ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সাংবাদিক ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষ রাস্তার মোড়ে মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করছে।

Sirajgonj_Photo

এদিকে, খুনীদের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক শিমুলের স্বজনরা। অন্যদিকে, সাংবাদিকের এতিম দুই সন্তানকে লেখাপড়ার জন্য সরকারের সহায়তা কামনা করেছেন স্বজনরা। হত্যার ঘটনায় শুক্রবার রাতে সাংবাদিক শিমুলের স্ত্রী নুরুন্নাহার খাতুন বাদী হয়ে পৌর মেয়র হালিমুল হক মীরুকে প্রধান আসামী করে ১৮জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, টেন্ডার হলেও পৌরসভার একটি রাস্তার কাজ মেয়রের লোকজন শুরু না করায় শাহজাদপুর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয় মাহমুদ প্রতিবাদ করে। এর জের ধরে পৌর মেয়র হালিমুল হক মীরুর ছোট ভাই পিন্টু সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিজয়কে তুলে এনে মারধর করে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়। এ ঘটনার জের ধরে ছাত্রলীগ ও স্থানীয়রা মেয়রের বাড়ীতে মিছিল নিয়ে গেলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ হয়।

এসময় ছবি তোলার সময় মেয়র হালিমুল হক মীরু সাংবাদিক শিমুলকে লক্ষ্য করে শর্টগানের গুলি ছুড়লে তার চোখ ভেদ করে মাথায় গুলি ঢুকে যায়। এতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে বগুড়া ও পরে ঢাকা নেয়ার পথে শিমুল মারা যায়। তার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ক্ষোভে ফেটে পড়ে শাহজাদপুরবাসী। মেয়রের গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার অর্ধদিবস হরতাল আহবান করা হয়। তার ফাঁসির দাবি জানায় সাংবাদিক ও সাংবাদিকের স্বজনরা।

সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আকরামুজ্জামান জানান, গতকাল বিকেলে সাংবাদিক শিমুলের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। তার মাথার মধ্যে একটি গুলি পাওয়া গেছে।  শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল হক জানান, রাতে নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।