Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • রাজশাহীতে বিস্ফোরকসহ আটকদের জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা খুঁজছে পুলিশ– বিস্তারিত....
  • বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে বৃষ্টি বাঁধা– বিস্তারিত....
  • ৩১১ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা, তাসকিনের হ্যাটট্রিক– বিস্তারিত....
  • দেড় কোটি টাকা নিয়ে উধাও জনতা সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি– বিস্তারিত....
  • মোহনপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মানববন্ধন– বিস্তারিত....

তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ২৭ রানে হেরে গেল বাংলাদেশ

জানুয়ারি ৮, ২০১৭

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টিতেও হলো হোয়াইটওয়াশ। ১৯৫ রানের লক্ষ্যে শুরুটা দুর্দান্তই হয়েছিল বাংলাদেশের। ৮ ওভারে ১ উইকেটেই ৮০ রান করেও ফেলেছিল। কিন্তু পুরো নিউজিল্যান্ড সফরের ধারা মেনে এরপরই ছন্দপতন। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ২৭ রানে হারে মাশরাফিরা।

তবে এ ম্যাচে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে আসছে টেস্ট সিরিজে ভালো কিছু করার ইঙ্গিত দেয় টাইগাররা। প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড নির্ধারিত ওভার শেষে চার উইকেট হারিয়ে ১৯৪ রান করে। জবাবে ছয় উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত ১৬৭ করতে সমর্থ হয় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে দলীয় পঞ্চম ওভারে দারুণ খেলতে থাকা তামিম ইকবাল বিদায় নেন। ১৫ বলে তিন চার এক ছয়ে ২৪ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের বলে আউট হন তিনি। অবশ্য একই ওভারে বাংলাদেশের দলীয় অর্ধশতক আসে। নবম ওভারে ফর্মে ফেরা সৌম্য সরকার উঁচু ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিওনে ফেরেন। ইশ সোধির বলে আউট হওয়া আগে ২৮ বলে ছয়টি চারের সাহায্যে ৪২ রান করেন বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান।

১৩ ওভারের প্রথম বলে দলীয় শতক আসে বাংলাদেশের। তবে আগের ওভারে কেন উইলিয়ামসনের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন সাব্বির রহমান। তার ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান। ১৬তম ওভারে ইশ সোধির দ্বিতীয় শিকার হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বোল্ড হওয়ার আগে ১৮ রান করেন তিনি। ১২ রান করে মিচেল স্ট্যান্টনারের বলে আউট হন মোসাদ্দেক হোসেন। আর ২০তম ওভারে ৩৪ বলে চারটি চারে ৪১ রান করা সাকিব আউট হন। বোল্টের বলে অ্যান্ডারসনের ক্যাচে পরিণত হন তিনি।

এর আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে প্রথমে ব্যাট করে চার উইকেট হারিয়ে ১৯৪ রান করে নিউজিল্যান্ড। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৯৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন কোরে অ্যান্ডারসন। বাংলাদেশের হয়ে তিন উইকেট দখল করেন রুবেল হোসেন।

দলীয় পঞ্চম ওভারে দুর্দান্ত বোলিং করেন বাংলাদেশি পেসার রুবেল হোসেন। নিজের দ্বিতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলেই সাফল্য পান ডানহাতি এ পেসার।  ওপেনার জেমস নিশামকে (১৫) ফেরান এলবিডব্লিউ করে। আর ওভারের শেষ বলে আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান কলিন মানরোকে (০) সৌম্য সরকারের ক্যাচে পরিণত করে প্যাভিলিওনে পাঠান রুবেল।

সপ্তম ওভারে নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় উইকেট তুলে নেয় টাইগাররা। নতুন ব্যাটসম্যান টম ব্রুসকে (৫) ইমরুলের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ১৪তম ওভালে দলীয় শতক আসে নিউজিল্যান্ডের। একই ওভারে টি-২০ ক্যারিয়ারের সপ্তম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন কেন উইলিয়ামসন। পরে ৫৭ বলে ছয় চার ও এক ছয়ে ৬০ রান করে রুবেলের বলে বোল্ড হন কিউই অধিনায়ক।

ম্যাচে বাংলাদেশ পরে আর কোনো সাফল্য পায়নি। উল্টো ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় স্বাগতিকরা। ঝড়ো গতির ব্যাটিং করে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন কোরে অ্যান্ডারসন। শেষে মাত্র ৪১ বলে দুটি চার ও ১০টি ছক্কায় ৯৪ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন এ বাঁহাতি। অপরদিকে ৪ রানে অপরাজিত থাকেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম।

টাইগার বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ছিলেন রুবেল। চার ওভার বল করে ৩১ রানে বিনিময়ে তিন উইকেট তুলে নেন তিনি। বাকি একটি উইকেট পান মোসাদ্দেক। এর আগে মাউন্ড মানুঙ্গানুইয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষটিতে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। প্রথম দুই ম্যাচে হেরে বাংলাদেশ ইতিমধ্যে সিরিজ থেকে ছিটকে গেছে।