সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৭ ১২:২২ অপরাহ্ণ

Home / slide / নতুন সিদ্ধান্তে সোনিয়া

নতুন সিদ্ধান্তে সোনিয়া

সাহেব-বাজার ডেস্ক : সোনিয়া হোসেন গত তিন বছর যেমন ব্যস্ত টিভি নাটকে তেমনি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। আবার উপস্থাপনাতেও তার নান্দনিক উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে এ বছরে সোনিয়া নতুন একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অভিনয়ের চেয়ে উপস্থাপনায় বেশি গুরুত্ব দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সোনিয়া বলেন, চলতি বছরে আমি অভিনয়ের চেয়ে উপস্থাপনাকে গুরুত্ব দেবো বেশি। কারণ, আমি উপস্থাপনাই বেশি ভালো করতে পারি বলে আমার মনে হয়। তবে খুব ভালো অনুষ্ঠান না হলে উপস্থাপনা করতে কোনো রকমের আগ্রহই নেই আমার। যেহেতু আমি ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা করেছি তাই ইংরেজিতে উপস্থাপনা করতেই আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।

অবশ্য টিভিতে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান আমাকে বাংলাতেই উপস্থাপনা করতে হয়। মাঝে পড়াশোনার কাজে বিদেশে থাকার কারণে মিডিয়া থেকে দূরে ছিলেন মডেল-অভিনেত্রী সোনিয়া। ২০১৪ সালে আবারো কাজে ফেরার পর নতুন পরিচয় উন্মোচিত হয় তার। উপস্থাপনায় যাত্রা শুরু করেন তিনি। যমুনা টিভির ‘শোবিজ টু-নাইট’ অনুষ্ঠানে উপস্থাপনার মধ্যদিয়ে নতুন এক দিগন্তের শুভ সূচনা হয় সোনিয়ার।

এরপর দেশ টিভির ‘সুরঞ্জনা’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করছেন টানা দু’বছর। তাহলে নাটকে অভিনয় কমিয়ে দেবেন? জবাবে সোনিয়া বলেন, ভালো কাজ করবো, অনেক অনেক কাজ করতে চাই না। আমি আমার অবস্থান নিয়ে সন্তুষ্ট। যেমন এই মুহূর্তে আবু হায়াত মাহমুদের ‘বৃষ্টিদের বাড়ি’ ধারাবাহিকে অভিনয় করছি। এটি বাংলাভিশনে প্রচার হচ্ছে। একটি কাজ ভালো হলেই আমি তৃপ্ত। আরশাদ আদনানের প্রযোজনায় আলভী আহমেদের নির্দেশনায় ‘ইউটার্ন’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এরপর কী আর চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন?

সোনিয়া বলেন, আমি কৃতজ্ঞ আরশাদ আদনান ভাইয়া এবং আলভী ভাইয়ার কাছে। কারণ, আমার স্বপ্ন ছিল চলচ্চিত্রে কাজ করার। সেই স্বপ্ন পূরণে তারা দু’জনই আমাকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। তা না হলে হয়তো আজও কাজ করা হতো না।

এরপর আর চলচ্চিত্রে কাজ করা হয়ে ওঠেনি আমার। ২০০৩ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত র‌্যাম্প মডেল হয়ে কাজ করেছিলেন সোনিয়া হোসেন।  মাঝে ২০০৫ সালে টিভি নাটকের অভিনয়ে তার যাত্রা শুরু হয়।

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

রোহিঙ্গাদের ত্রাণের ট্রাক সেতু ভেঙে খাদে, নিহত ৯

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ত্রাণ নিয়ে যাওয়ার পথে রেড ক্রিসেন্টের একটি ট্রাক সেতু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *