Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • মোহনপুরে দুই সহদোরের শয়নকক্ষে মিললো গোখরার ৫৬ বাচ্চা– বিস্তারিত....
  • রাজশাহীর ২০০ শিক্ষার্থী পেল জেলা পরিষদের বৃত্তি– বিস্তারিত....
  • নিরাপত্তার প্রশ্নে কোনো আপোস নয় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • মোহনপুরে তিনদিন ব্যাপি ফলদ ও বৃক্ষমেলার উদ্বোধন– বিস্তারিত....
  • মানবপাচারের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় থাই জেনারেলের কারাদণ্ড– বিস্তারিত....

অধরাই থাকল বাংলাদেশের শিরোপার স্বপ্ন

জানুয়ারি ৪, ২০১৭

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ছেলেদের ফুটবল যখন নির্বাসনে, তখন আশার আলো হয়ে জ্বলতে শুরু করেছে মেয়েদের ফুটবল। প্রায় সব ধরনের প্রতিযোগিতায় মেয়েদের সাফল্য চোখে পরার মতো। ব্যতিক্রম ছিল না সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের চতুর্থ আসর।

সেমিফাইনাল খেলার লক্ষ্য নিয়ে গিয়ে ফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের মতো দলকে উড়িয়ে দিয়ে ও ভারতের মতো দলকে রুখে দিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। তখন স্বপ্নের রঙ ছড়াতে শুরু করেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা।

সেমিফাইনালে মালদ্বীপের হালে অর্ধডজন গোল দিয়ে স্বপ্নটা আরো বড় হয় বাংলাদেশের কোটি কোটি ফুটবলপ্রেমীদের। ছেলেদের ফুটবলের ব্যর্থতায় যারা হতাশ ও মুষড়ে পড়েছিলেন তারাও আশায় বুক বেঁধেছিলেন। তাহলে ২০০৩ সালে ছেলেদের পর এবার মেয়েদের হাতেও উঠতে যাচ্ছে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা! গ্রুপপর্বে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ এমন স্বপ্ন দেখতে সাহস জুগিয়েছিল বাংলাদেশের মানুষকে।

কিন্তু ফাইনালে স্বপ্নের রঙ-তুলির শেষ আচড়টি দিতে পারেনি বাংলাদেশের মেয়েরা। অভিজ্ঞতায় পরিপূর্ণ ভারতের মেয়েদের সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে পারেনি সাবিনা-স্বপ্নারা। মূলত অভিজ্ঞতার কাছেই হেরেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে চারবার ফাইনাল খেলা ভারতের মেয়েদের সঙ্গে প্রথমার্ধে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেছে বাংলাদেশ। ১১ মিনিটে ভারত প্রথম গোল করে এগিয়ে যায়। ৩৮ মিনিটে বাংলাদেশের সিরাত জাহান স্বপ্নার দারুণ গোলে ম্যাচে সমতায় ফেরে বাংলাদেশ। সমতা নিয়েই শেষ হয় প্রথার্ধের লড়াই।

ফাইনালে ভারতের কাছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরে গেছে বাংলাদেশ। এর ফলে মহিলা সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের টানা চতুর্থ শিরোপা ভারতের শোকেসে উঠল। অন্যদিকে অধরাই থাকল বাংলাদেশের শিরোপার স্বপ্ন।

বুধবার শিলিগুঁড়ির কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১১ মিনিটে প্রথম গোল হজম করে বাংলাদেশ। ৩৮ মিনিটে বাংলাদেশের সিরাত জাহান স্বপ্না গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরান। বিরতির পর ৬১ মিনিটে পেনাল্টি পায় ভারত। পেনাল্টি থেকে গোল করে আবারো ম্যাচে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ৬৬ মিনিটের সময় আরো একটি গোল পায় শক্তিশালী ভারত। তাতে ৩-১ ব্যবধানে লিড নেয় তারা। বাকি সময়ে এই গোল আর শোধ দিতে পারেনি বাংলাদেশ। ফলে রানার্স-আপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় বাংলাদেশের মেয়েদের।

এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো ফাইনাল খেলল ভারত। আগের তিন আসরের শিরোপা তারাই জিতেছিল। এবারও তারাই জিতল। অন্যদিকে প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেলছে বাংলাদেশ। প্রথম শিরোপা জিততে মরিয়া বাংলাদেশের হাতে ধরা দেয়নি শিরোপা।