Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • মোহনপুরে দুই সহদোরের শয়নকক্ষে মিললো গোখরার ৫৬ বাচ্চা– বিস্তারিত....
  • রাজশাহীর ২০০ শিক্ষার্থী পেল জেলা পরিষদের বৃত্তি– বিস্তারিত....
  • নিরাপত্তার প্রশ্নে কোনো আপোস নয় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • মোহনপুরে তিনদিন ব্যাপি ফলদ ও বৃক্ষমেলার উদ্বোধন– বিস্তারিত....
  • মানবপাচারের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় থাই জেনারেলের কারাদণ্ড– বিস্তারিত....

দুর্গাপুরে প্রতারক চক্রের নারী সদস্য আটক

জানুয়ারি ৩, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক, দুর্গাপুর : দুর্গাপুরে ভূমিহীন পরিবারের সদস্যদের আবাসন ব্যবস্থা করে দেয়ার নাম করে চাঁদা উঠানোর সময় বিউটি বেগম (৩০) নামের এক মহিলা প্রতারক চক্রের সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। পরে বিউটি খাতুনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে উপস্থিত করা হলেও ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে ক্ষমা চেয়ে তিনি মুক্তি পান বলে জানা গেছে। বিউটি বেগম উপজেলার কিশোরপুর গ্রামের আব্দুল মান্নানের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার দুপুরের দিকে প্রতারক চক্রের সদস্য বিউটি খাতুন উপজেলার জয়কৃষ্ণপুর এলাকায় যান। এরপর তিনি ওই গ্রামের ভূমিহীন পরিবারের টার্গেট করে তাদের স্বল্প মূল্যে আবাসন ব্যবস্থা করে দেয়ার কথা বলে তাদের কাছে টাকা দাবি করেন। এ সময় তিনি নিজেকে সমাজসেবা অধিদপ্তরের একজন কর্মচারী বলে পরিচয় দেন ভূমিহীন পরিবারের লোকজনের কাছে। তার কথা সরল বিশ্বাসে মেনে নিয়ে ২০ থেকে ২৫টি পরিবারের লোকজন প্রাথমিক ভাবে সদস্য ফরম পুরণ করেন। ফরম পুরণের সময় তাদের বলা হয় ফরমের একশ ও রেজিস্ট্রেশনের জন্য ১ হাজার টাকা জমা দিতে বলে ওইদিন চলে যায় বিউটি খাতুন।

মঙ্গলবার সকালে বিউটি খাতুন আবারো সেখানে গিয়ে ভূমিহীন পরিবারের সদস্যদের ডেকে জড়ো করেন। এ সময় রমিমা, শ্যামলী, রিনা ও রানী নামের কয়েকজন মহিলার কাছ  থেকে ফরম বাবদ একশ টাকা করে এবং  ৭ জনের কাছ থেকে ৭০০ টাকা করে আদায় করেন। বিষয়টি ওই এলাকার একজনের সন্দেহ হলে স্থানীয় ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর জহুরুল ইসলাম মিরুনকে ডাকেন। এরপর ঘটনাস্থলে পৌর কাউন্সিলর মিরুন উপস্থিত হলে বিউটি খাতুনকে বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এক পর্যায়ে ভুলভাল উত্তর দিতে থাকে বিউটি খাতুন। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে পালানোর চেষ্টা করলে বিউটি খাতুনকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করে এলাকাবাসী।

পরবর্তিতে থানা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বিউটি খাতুন জানায় গোদাগাড়ী উপজেলার মর্জিনা বেগম ও রংপুরের রহিমা বেগম নামের দুই মহিলা তাকে এই পথে এনেছে। তবে তাদের রাজশাহীতে একটি অফিস রয়েছে। সেখানে রাকেশ নামের একজন ব্যাক্তি তাদের দিয়ে এসব কাজ করান।

এদিকে, সন্ধ্যায় আটককৃত বিউটি খাতুনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে হাজির করা হলে আদালেতর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ক্ষমা চেয়ে মুক্তিপান বিউটি খাতুন।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুহুল আলম জানান, ওই মহিলার বিরুদ্ধে কেউ লিখিত অভিযোগ না করায় তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে হাজির করা হয়।