Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • রাজশাহীতে বিস্ফোরকসহ আটকদের জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা খুঁজছে পুলিশ– বিস্তারিত....
  • বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে বৃষ্টি বাঁধা– বিস্তারিত....
  • ৩১১ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা, তাসকিনের হ্যাটট্রিক– বিস্তারিত....
  • দেড় কোটি টাকা নিয়ে উধাও জনতা সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি– বিস্তারিত....
  • মোহনপুরে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মানববন্ধন– বিস্তারিত....

এমপি লিটনের মরদেহ ঢাকায় আনা হচ্ছে

জানুয়ারি ১, ২০১৭

সাহেব-বাজার ডেস্ক : দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের মরদেহ ঢাকায় নেয়া হবে। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে মরদেহ ঢাকায় নেয়া হবে।

সোমবার জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজা শেষে মরদেহ সুন্দরগঞ্জে নেয়া হবে। সেখানে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। এর আগে রবিবার সকালে রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল মাঠে মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

রংপুর মেডিকেলে ময়নাতদন্তের পর মরদেহ সুন্দরগঞ্জে নেয়ার কথা থাকলেও হঠাৎ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে মরহুমের পরিবার। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মরদেহ ঢাকায় নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক ও নিহত সাংসদের শ্যালক বেতারুল আহসান ঢাকাটাইমসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তারা বলেন, আজ সকালে মরদেহ ময়নাতদন্ত চলছে।

তদন্তকাজ শেষ হলে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মরদেহ ঢাকায় নেয়া হবে। আগামীকাল জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজার পর মরদেহ সুন্দরগঞ্জে নেয়া হবে। সেখানে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের নানক বলেন, ‘এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জামায়াত-শিবির চক্র জড়িত। তার (লিটন) কারণে সুন্দরগঞ্জে সুবিধা করতে না পেরে জামায়াত-শিবিরই লিটনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।’

এদিকে গুলিতে সাংসদের মৃত্যুর ঘটনায় উত্তাল হয়ে উঠেছে গাইবান্ধা। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পরপরই বিক্ষোভে ফেটে পড়ে আওয়ামী লীগ ও লিটনের নেতাকর্মীরা। সড়কে অবস্থান করে বিক্ষোভ করতে তারা। এর ফলে ওইসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আজ সকাল থেকে সুন্দরগঞ্জের বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে হরতাল চলছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন আওয়ামী এসব হরতাল পালন করছে।

গতকাল সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গার সর্বানন্দ ইউনিয়নের শাহাবাজ গ্রামের মাস্টারপাড়াস্থ নিজ বাসায় এমপি লিটনকে গুলি করে মোটরসাইকেলে আসা পাঁচজন দুর্বৃত্ত। দুটি মোটরসাইকেলে এসে তারা এমপিকে গুলি করে। পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

আজ সকাল আটটার দিকে রংপুর মেডিকেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শুরু হয়। রমেকের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ড. নারায়ন চন্দ্র সাহাকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। অন্য দুই সদস্য হলেন- ডা. খায়রুল ইসলাম ও ডা. রেজাউল করিম।