Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনে সংঘর্ষ, উদ্বিগ্ন সাংসদ বাদশা– বিস্তারিত....
  • ভোটের ‘ধর্মীয় সেন্টিমেন্টে’ ভাস্কর্য সরানোর ‘পক্ষে’ আ’লীগ-বিএনপি– বিস্তারিত....
  • আমরা আজ হেরে গেলাম : ভাস্কর মৃণাল হক– বিস্তারিত....
  • নতুনদের জন্য ভিডিও এডিটিং কোর্স নিয়ে এলো বিআইটিএম– বিস্তারিত....
  • সৌদিতে রোজা শুরু শনিবার, বাংলাদেশে রবিবার– বিস্তারিত....

কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত বিমানের উদ্ধারাভিযান

ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬

সাহেব-বাজর ডেস্ক : নিখোঁজ হওয়া রাশিয়ান বিমানটি কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে। উড্ডয়নের মাত্র বিশ মিনিট পরই রাডার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল সামরিক বিমানটি। কৃষ্ণসাগরের নিকটবর্তী সচি বন্দর থেকে বিমানটি উড্ডয়ন করেছিল। টিইউ-১৫৪ নামে বিমানটিতে ৯১ জন আরোহী ছিলেন। বিমানটি সিরিয়ার লাটাকিয়া প্রদেশে যাচ্ছিল।

প্রথমদিকে অনেকেই ধারণা করেছিলেন এটা কোনো সন্ত্রাসী হামলায় ভূপাতিত হয়েছে বা অন্য কোনো দেশের হাত রয়েছে সেখানে। বিমানের পাইলটদের সাথে সর্বশেষ আলাপচারিতায় কোনো ধরণের দুর্ঘটনার পূর্বাভাস পাওয়া যায়নি। আবহাওয়া একেবারে স্বাভাবিক ছিল। তাই কোনো সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে কিনা সেটা নিয়ে আশঙ্কা ছিল। তবে সেটাকে স্রেফ একটা দুর্ঘটনাই বলে মনে করেন রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ভিক্টর ওজেরভ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ও রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে জানা যায়, বিমানে ৮৩ জন যাত্রী ও ৮ জন ক্রু ছিলেন। যাত্রীদের বেশিরভাগই ছিলেন সামরিক বাহিনীর সংগীত দল ও বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদকদল। আলেক্সান্দ্রভ এনসেম্বল নামে রাশিয়ার সেনাবাহিনীর অফিসিয়াল সংগীত দল ছিল সে বিমানটিতে। সংগীত দলের সদস্যসহ নয়জন সাংবাদিক, আটজন সেনা, দুজন সরকারী কর্মকর্তা এবং আটজন ক্রু ছিলেন সেই বিমানে। যাত্রী তালিকায় ছিলেন এলিজাবেটা গ্লিনকা নামে একজন দেশটির একজন পুরস্কার বিজয়ী এনজিও কর্মী। ফেয়ার এইড চ্যারিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেই এনজিও কর্মী ড. লিজা নামেও পরিচিত।

রাশিয়ান সেনাদের নতুন বছর উদযাপনের জন্য এই সংগীত দলটিকে পাঠানো হয়েছিল। লাটাকিয়াতে রাশিয়ার এয়ার বেইসে তাদের পারফর্ম করার কথা ছিল।

সচি থেকে উড্ডয়নের বিশ মিনিট পরপরই বিমানটি নিয়ন্ত্রণ টাওয়ারের সাথে সংযোগ হারিয়ে ফেলে, রাডারের সাথে সংযোগ হারিয়ে ফেলে। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী বিমানটি খোঁজার জন্য একটি অনুসন্ধানী দল কাজ করে যাচ্ছে। সচির সৈকত থেকে তিন কিলোমিটার দূরে একটি মরদেহ উদ্ধার করেছে উদ্ধারকর্মীরা। সব মিলিয়ে চারটি মরদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে উদ্ধারকারী দল।

কেন বিমানটি বিধ্বস্ত হলো তা নিয়ে তদন্ত করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদবকে প্রধান করে সে কমিটি দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

সূত্র: সিএনএন, বিবিসি, আরটি