Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • প্রশাসনিক দায়িত্ব হারাচ্ছেন বাঘা উপজেলা চেয়ারম্যান– বিস্তারিত....
  • দায়িত্ব অবহেলায় বরিশাল ও বরগুনার ডিসি প্রত্যাহার– বিস্তারিত....
  • নাটোরে অস্ত্রসহ দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ– বিস্তারিত....
  • তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনার ক্ষমতা সরকারের নেই : নজরুল ইসলাম খান– বিস্তারিত....
  • উন্নয়ন প্রকল্পের প্রথম কিস্তির চেক বিতরণ করল জেলা পরিষদ– বিস্তারিত....

রাবির নিয়োগ পরীক্ষায় আর বাধা দিবে না আওয়ামী লীগ

ডিসেম্বর ২৪, ২০১৬

রাবি প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শেখ রাসেল মডেল স্কুলের আগামীকাল রোববার অনুষ্ঠিতব্য নিয়োগ পরীক্ষায় বাধা দিবে না স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। শনিবার রাতে মুঠোফোনে সাহেব-বাজার২৪ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।

ডাবলু সরকার বলেন, ‘আগামীকাল (রোববার) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শেখ রাসেল মডেল স্কুলের নিয়োগ পরীক্ষায় আমাদের নেতাকর্মীরা কোনো বাধা দিবে না। চাকরি প্রার্থীরা শঙ্কা ছাড়াই পরীক্ষা দিতে পারবে।’ নিশ্চিন্তে পরীক্ষা দিতে আসার জন্য চাকরি প্রার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

তবে এর আগে নিয়োগ পরীক্ষায় বাধার বিষয়ে তিনি বলেন, রাবির নিয়োগ পরীক্ষায় বয়সসীমা বাতিল, মুক্তিযোদ্ধাদের নাতি-নাতনীদের কোটার দাবি ও অস্বচ্ছ অভিযোগ তুলে আন্দোলন করে আসছিলাম। পরে এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সাথে প্রাথমিক কথা হয়েছে। আরো বিস্তারিত কথা বলা হবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা আমাদের আন্দোলন থেকে সরে এসেছি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শেখ রাসেল মডেল স্কুলে ১৩টি পদের বিপরীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এতে ৯জন সহকারী শিক্ষক, একজন হিসাব সহকারী, একজন অফিস সহকারী ও দুই জন সাধারণ কর্মচারী পদের বিপরীতে প্রার্থীদের আবেদন আহ্বান করা হয়।

আগামীকাল ২৫ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবনে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার তারিখ নির্ধারিত আছে।

এর আগে ২৩ ডিসেম্বর নিয়োগে বসয়সসীমা বাতিল ও অস্বচ্ছতার অভিযোগ তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৭টি পদের পরীক্ষা বন্ধ করে দেয় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এর একদিন আগে ২১ ডিসেম্বর তারা বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলের দুইটি সাধারণ কর্মচারী পদের সাক্ষাৎকার বন্ধ করে দেয়।

জানা গেছে, ২০১৩ সালের মার্চ মাসে উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও উপ-উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর থেকেই নিয়োগে দলীয় প্রার্থীদের প্রাধান্য না দেওয়ার অভিযোগ এনে বিভিন্ন সময় ক্ষোভ প্রকাশ করে উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যকে চাপ দেওয়া হয়। বর্তমান প্রশাসনের মেয়াদ শেষ হবে ২০১৭ সালের মার্চে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন সাহেব-বাজার২৪ডটকমকে বলেন, ‘আমার জানামতে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী নিয়োগ নিয়ে আন্দোলন করছিলো। বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলে নিয়োগ নিয়ে তাদের আপত্তি আছে বলে জানা নেই। তবে দেখা যাক, কাল সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা হয় কি না। আমরা পরীক্ষা নেওয়ার জন্য প্রস্তুত আছি।’