Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • মোহনপুরে দুই সহদোরের শয়নকক্ষে মিললো গোখরার ৫৬ বাচ্চা– বিস্তারিত....
  • রাজশাহীর ২০০ শিক্ষার্থী পেল জেলা পরিষদের বৃত্তি– বিস্তারিত....
  • নিরাপত্তার প্রশ্নে কোনো আপোস নয় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • মোহনপুরে তিনদিন ব্যাপি ফলদ ও বৃক্ষমেলার উদ্বোধন– বিস্তারিত....
  • মানবপাচারের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় থাই জেনারেলের কারাদণ্ড– বিস্তারিত....

‘বাণিজ্য বৃদ্ধি-জলবায়ু প্রভাব মোকাবেলায় জোর দেব’

ডিসেম্বর ২০, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বাংলাদেশে তিন দিনের সফরে এসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ বিষয়ক বাণিজ্য দূত রুশনারা আলী এমপি জানিয়েছেন, যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্ক আরো জোরদারে সর্বাত্মকভাবে কাজ করা হবে। একইসঙ্গে জলবায়ু ইস্যুতে যুক্তরাজ্যের সহযোগিতা নিশ্চিত করাও হবে তার অন্যতম লক্ষ্য। সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) ঢাকায় ব্রিটিশ হাই কমিশনারের বাসভবনে কয়েকটি গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। বাণিজ্য দূত হওয়ার পর রুশনারা আলীর এটিই প্রথম বাংলাদেশ সফর।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ খুবই সৃজনশীল ও প্রাণবন্ত। বাংলাদেশের আরো উন্নয়ন ও অগ্রগতি এবং হুমকি মোকাবেলায় যুক্তরাজ্যের চলমান সহযোগিতা আরো জোরদারে আমি বেশি আগ্রহী। দুই দেশ যাতে মজবুত বাণিজ্য সম্পর্কের মাধ্যমে বেশি উপকৃত হয় সেক্ষেত্রেই জোর দেয়া হবে। বাজারের কৌশলগত দিক বিবেচনায় বাংলাদেশ খুবই ভালো জায়গা বলে মনে করেন তিনি।

লেবার পার্টির এই এমপি বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান সরকার অবকাঠামোগত উন্নয়নের ওপর বেশি জোর দিচ্ছে বলে আমি জানি। এখানে অবশ্যই ভালো অবকাঠামো দরকার। এটা হলে ব্যাপক পরিবর্তন সাধিত হবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার প্রভাব ও ভবিষ্যত দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য আলোচনা নিয়ে তিনি বলেন, বেক্সিটের পর বিভিন্ন দেশের সঙ্গে আলোচনা হবে। দূতরা মজবুত বাণিজ্য সম্পর্ক গড়তে তাদের ভূমিকা পালন করবে।

আলাপকালে তিনি আরো বলেন, রানা প্লাজার দুর্ঘটনার পর গার্মেন্টস খাতে নিরাপত্তা ও কর্ম পরিবেশের যে উন্নতি হয়েছে সেটা তুলে ধরতে হবে। বৃহস্পতিবার ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার আগে রুশনারা আলী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, বিরোধী দলীয় নেতা ও ব্যবসায়িক অংশীদারদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে বর্তমানে যুক্তরাজ্যের ২৪০টির বেশি কোম্পানি তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আর যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহৎ রপ্তানির দেশ।