অক্টোবর ১৯, ২০১৭ ৮:২০ অপরাহ্ণ

Home / slide / আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে ইউপি সদস্যকে তুলে নিয়ে গিয়ে টাকা লুট

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে ইউপি সদস্যকে তুলে নিয়ে গিয়ে টাকা লুট

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যকে তুলে নিয়ে গিয়ে ২০ লাখ টাকা লুট করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগি রুহুল আমিন নয়ন (৩২) গোদাগাড়ীর মাটিকাটা ইউপির ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতিও তিনি। উপজেলার কাঁঠালবাড়ীয়া গ্রামে তার বাড়ি।

ইউপি সদস্য রুহুল আমিন নয়নকে তুলে নিয়ে গিয়ে টাকা লুটের ঘটনায় তিনি নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রুহুল আমিন নয়ন রাজশাহী সিটি হাটে গরু কেনা-বেচা করেন। রোববার সন্ধ্যায় তিনি হাট শেষে গরু ব্যবসার ২০ লাখ টাকা নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে বাসায় ফিরছিলেন। সঙ্গে ছিল তার ছেলে নবীন ইসলাম (৭)।
বাসায় ফেরার পথে রাজশাহী মহানগরীর ডাবতলা এলাকায় সাদা পোশাকে পাঁচজন ব্যক্তি তাদের গতিরোধ করে নিজেদের একটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দেয়। এরপর প্রথমেই নবীন ইসলামকে তাদের কাছে থাকা একটি মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এরপর তারা নয়নের হাতে হাতকড়া পরিয়ে তাকেও গাড়িতে তুলে নেয়। গাড়িতে তোলার পর তাদের চোখ-মুখ বেঁধে দেওয়া হয়। এরপর নয়নের কাছে থাকা একটি স্কুলব্যাগ জোর করে কেড়ে নেওয়া হয়।

রুহুল আমিন নয়ন দাবি করেন, ওই ব্যাগে তার গরু কেনা-বেচার ২০ লাখ টাকা ছিল। দুর্বৃত্তরা তার কাছ থেকে টাকা কেড়ে নেয়ার পর নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া এলাকায় একটি ফাঁকা জায়গায় গাড়ি থামিয়ে তাদের নামিয়ে দেয়া হয়। এরপর স্থানীয়দের সহায়তায় তিনি রাজশাহী ফিরে রাতেই রাজপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। তবে তিনি কাউকেই চিনতে পারেননি।

রাজপাড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা জানান, অভিযোগের তদন্ত চলছে। দুর্বৃত্তরা কারা ছিল, তা উৎঘাটনের চেষ্টা চলছে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও বিষয়টি সম্পর্কে নজরদারি করছেন। অভিযোগটি মামলায় রুপান্তরিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মার্কিন সিনেটররা

সাহেব-বাজার ডেস্ক : মিয়ানমার থেকে প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে আসা সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *