Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • আ’লীগকে আবারও ক্ষমতায় আনতে প্রস্তুত নিতে হবে : শাহরিয়ার– বিস্তারিত....
  • রাজশাহীতে বেড়েছে মৌসুমী ভিক্ষুক– বিস্তারিত....
  • চারঘাট-বাঘা সীমান্তে থেমে নেই চোরাকারবারী চক্র– বিস্তারিত....
  • তানোরে গ্রাম পুলিশ ও ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারীদের মধ্যে লুঙ্গি ও শাড়ি বিতরন– বিস্তারিত....
  • চীনে ভূমিধস: নিখোঁজ শতাধিক মানুষ– বিস্তারিত....

শ্রমিককে মারপিটের জেরে রাজশাহী থেকে বাস বন্ধ

ডিসেম্বর ১, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাস শ্রমিকদের মারপিট করার জের ধরে রাজশাহী-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার রাত ৯টা থেকে রাজশাহী থেকে সব রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। রাত সাড়ে ১১টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাস বন্ধই ছিল।

রাজশাহী মহানগরীর শাহমখদুম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে রজনীগন্ধা পরিবহনের একটি বাস মোহনপুরের কেশরহাট হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। পথে নওদাপাড়া আমচত্বর মোড়ে বাসের শ্রমিকরা ছাদে মালামাল তুলছিলেন। কিন্তু ট্রাক ধর্মঘট চলায় বাসের ছাদে মালামাল তোলার প্রতিবাদ করেন ট্রাক শ্রমিকরা। এক পর্যায়ে তারা ওই বাস আটকে রেখে শ্রমিকদের মারধর করেন। এর প্রতিবাদে রাত ৯টা থেকে জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমিকরা শিরোইল বাস টার্মিনাল থেকে সবধরনের বাস চলাচল বন্ধ করে দেন।

এদিকে বাস বন্ধ করে দেয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। অনেকে নির্ধারিত সময়ে বাস ছেড়ে না দেয়ায় বিড়ম্বনায় পড়েন। ন্যাশনাল ট্রাভেলসের রাজশাহীর কাউন্টার মাস্টার রানা জানান, বাস বন্ধ হওয়ায় আর সবার মতো তাদেরও কয়েক’শ যাত্রী আটকা পড়েছেন। মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ গাজী বলেন, ৬টার সময় বাস আটকে রেখে মারধর করা হলেও আমরা বাস চলাচল বন্ধ করিনি। চেষ্টা করেছি বাস ছাড়িয়ে নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করতে। কিন্তু তারা বাসটি ছেড়ে না দিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে সবধরনের বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এর প্রতিবাদে আমরা ঢাকায় চলাচলের সব পরিবহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছি।

বাসে মালামাল পরিবহনের বিষয়ে তিনি বলেন, একজন লোকের ব্যক্তিগত মালামালই পরিবহন করা হচ্ছিলো। এছাড়া রাজশাহীর কেশরহাট, বায়া ওই অঞ্চল মালামাল বাসে করেই পরিবহন করা হয়। আর তারা যে মালামাল পরিবহন করতে দিবে না তা-ও তো বাস মালিকদের জানায়নি। লিখিতভাবে জানানো হলে সব বাসকে সব ধরনের মালামাল ও পণ্য পরিবহনে নিষেধ করে দেওয়া হতো।

রাত সাড়ে ১১টায় শাহমখদুম থানার ওসি জিল্লুর রহমান বলেছেন, ‘বাস ও ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা নওদাপাড়া বাস টার্মিনালে মিটিং করছেন। আশা করছি রাতের মধ্যেই যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।’