Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • ‘আপত্তিকর’ কাজে বাধা দেয়ায় প্রহরীকে মারধর– বিস্তারিত....
  • বামশক্তি কনসোলিটেড হয়ে দাঁড়াতে না পারলে ফিল ইন দ্য ব্লাংক করে ফেলবে ধর্মীয় শক্তি : আবুল বারকাত– বিস্তারিত....
  • মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে হলে ভ্যাটের বিকল্প নেই : ভূমিমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙে পড়েছে কালভার্ট– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ইয়াবাসহ চার যুবক আটক– বিস্তারিত....

মায়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক সংগঠনের চাপ সৃষ্টির আহ্বান

নভেম্বর ২৩, ২০১৬

রাবি প্রতিবেদক : রাখাইনে রোহিঙ্গা হত্যাযজ্ঞ বন্ধে মায়ানমার সরকারের ওপর আন্তর্জাতিক সংগঠনের চাপ সৃষ্টি এবং অং সান সুচি’র নোবেল ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এক মানববন্ধনে এসব দাবি করেন শিক্ষার্থীরা।

অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী পিয়াস বলেন, ‘জীবন বাঁচানোর তাগিদে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে ঢুকার চেষ্টা করলেও তাদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। ভাসতে ভাসতে অনাহারে আজ তাদের জীবন বিপন্ন। মৃত্যুকে বরণ করে নিতে তারা বাধ্য হচ্ছে। এ সময়ে আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর নিরব ভূমিকা তাদের ব্যর্থতার প্রতিচ্ছবি। মায়ানমার সরকারের ওপর আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর চাপ সৃষ্টির আহ্বান জানাচ্ছি যাতে রোহিঙ্গাদের এভাবে হত্যার শিকার হতে না হয়।

মানববন্ধনে অর্থনীতি বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী ইমরান বলেন, ‘বেপরোয়াভাবে নির্বিচারে রোহিঙ্গাদের হত্যা করা হচ্ছে। রোহিঙ্গা নারীদের ধর্ষণ পরবর্তী হত্যা করা হচ্ছে। কিন্তু জাতিসংঘ, ন্যাটোসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলো এক্ষেত্রে কিছুই করতে পারছে না, নাকি করছে না? তাদের উচিত মায়ানমার সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করে এ হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করা।’

তিনি আরো বলেন, ‘অং সান সুচি’কে কিসের ভিত্তিতে শান্তিতে নোবেল দেওয়া হয়েছে। যে সুচি ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় রোহিঙ্গাদের এভাবে হত্যা করা হচ্ছে, সে নোবেলের যোগ্য নয়। হয়তো তার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ মদদে এ বর্বরতা চালানো হচ্ছে। আমরা দাবি রাখছি তার নোবেল ফিরিয়ে নেওয়া হোক।

রাবির আরেক শিক্ষার্থী সাজ্জাদ বলেন, ‘আজ ধর্মের কথা নয়, রোহিঙ্গা প্রশ্নে বিশ্ব মানবতা আজ নিরব। দিনে দিনে আমরা চেতনা বিহীন প্রাণীতে পরিণত হয়ে যাচ্ছি। অত্যাচারীরা আজ সংঘবন্ধ কিন্তু আমরা সংঘবদ্ধ নই। রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় আমাদের সংঘবদ্ধ হতে হবে, তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে।’

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়ে মায়ানমার সরকারকে ধিক্কার জানান। তারা অতি দ্রুত রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার দাবিতে আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সেই সাথে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানান সাময়িকভাবে যেন তাদের আশ্রয় দেওয়া হয়।