Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • ‘আপত্তিকর’ কাজে বাধা দেয়ায় প্রহরীকে মারধর– বিস্তারিত....
  • বামশক্তি কনসোলিটেড হয়ে দাঁড়াতে না পারলে ফিল ইন দ্য ব্লাংক করে ফেলবে ধর্মীয় শক্তি : আবুল বারকাত– বিস্তারিত....
  • মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে হলে ভ্যাটের বিকল্প নেই : ভূমিমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙে পড়েছে কালভার্ট– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ইয়াবাসহ চার যুবক আটক– বিস্তারিত....

দিয়াজকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যার নাটক

নভেম্বর ২১, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর পরিবার ও দলীয় কর্মীদের দাবি হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ দিকে লাশ উদ্ধারের পর দিয়াজের শরীরের তিন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফসানা বিলকিস।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, দিয়াজের গলার উভয় পাশে আঁচড়ের চিহ্ন আছে। তবে বাঁ পাশে আঁচড়ের পরিমাণ বেশি। এ ছাড়া তার হাতের কবজি ও পায়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ভিসেরা রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ বলতে পারব।

দিয়াজের মা জোবায়দা আমিন চৌধুরী জানান, আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। দিয়াজকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেট এলাকায় চারতলা একটি ভবনের দ্বিতীয় তলায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন দিয়াজ ও তার পরিবারের সদস্যরা। রবিবার (২০ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দিয়াজের লাশ পাওয়া যায়। এ সময় বাসায় কেউ ছিল না।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় ৯৫ কোটি টাকা টেন্ডার নিয়ে চবি ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। একটি পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন বর্তমান সভাপতি আলমগীর টিপু এবং আরেকটি পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক দিয়াজ ইরফান। তারা নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী।

দিয়াজ ২০০৬-০৭ শিক্ষাবর্ষের ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন। গত বছর তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদকের পদ পান।