Ad Space

তাৎক্ষণিক

নাটোরের কেন্দ্রে ঢুকে পরিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম

নভেম্বর ২০, ২০১৬

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের গুদাসপুরে নবম শ্রেণির (কারিগরি শাখা) বোর্ড সমাপনী পরীক্ষা দিতে আসা শান্ত কুমার সরকার (১৫) নামের এক ছাত্রকে পিটিয়ে যখম করেছে স্থানীয় বখাটেরা। রবিবার সকালে উপজেলার বেগম রোকেয়া গালর্স স্কুলের ভেতরে ঢুকে ওই ঘটনা ঘটায় বখাটেরা।

এ ঘটনায় স্কুলের ভিতরে বিক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। পরে আহত শান্তকে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পরীক্ষার হলে পাঠানো হয়। জানা গেছে শান্ত কুমার সরকার উপজেলার সিধুলী গ্রামের অখিল চন্দ্র সরকারের ছেলে ।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সিধুলী গ্রামের অখিল চন্দ্র সরকারের ছেলে শান্ত একই উপজেলার নুর মোহম্মদ বিশ্বাস টেকনিক্যাল স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র। রোকেয়া গালর্স স্কুলে শান্ত ও তার বন্ধু মোবারক পাশাপাশি সিটে বসে নবম শ্রেনীর কারিগরি বোর্ড সমাপনী পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। এসময় স্থানীয় কয়েকজন বখাটে যুবক পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করে মোবারককে মারধর করতে থাকে। মোবারকের বন্ধু শান্তু কুমার সরকার তাদের বাধা দিলে বখাটেরা লোহার রড ও কাঠের বাটাম দিয়ে শান্তকে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে পালিয়ে যায়। এতে শান্তর মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়। এসময় শান্তর চিৎকারে অন্য শিক্ষার্থীরা এগিয়ে গিয়ে আহত অবস্থায় শান্তকে উদ্ধার করে।

আহত ছাত্র শান্ত কুমার সরকার বলেন, স্থানীয় কয়েকজন বখাটে যুবক মিঠুন, ওসামা, রফিক, কাজল ও লিখন ভিতরে এসেই মোবারককে মারধর শুরু করে। এসময় শান্ত বাধা দিলে বখাটেরা তার ওপর হামলা চালিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়।

এবিষয়ে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক রবিউল করিম জানান, আহত ওই ছাত্রের মাথায় চারটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। এছাড়া মুখে এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকি চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য পাঠানো হয়েছে। এক মাস বিশ্রাম নিলে সুস্থ্য হয়ে উঠবেন তিনি।

এব্যাপারে বেগম রোকেয়া গালর্স স্কুল এ্যন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি শান্ত ও মোবারকের পরিবারকে জানানো হয়েছে। বর্তমানে পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিলীপ কুমার দাস জানান, খবর পেয়ে তিনি নিজেই পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। তবে তখন কোন বখাটেকে সেখানে পাওয়া যায়নি। এব্যাপারে এখনও কোন মামলা হয়নি। মামলা হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।