Ad Space

তাৎক্ষণিক

তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে ছাত্রী অপহরণের অভিযোগ

নভেম্বর ১৫, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোদাগাড়ী : রাজশাহীর গোদাগাড়ী সদর ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা মারফুল ইসলাম ওরফে মারুফের (২৭) বিরুদ্ধে এক স্কুলছাত্রীকে (১৪) অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ছাত্রীর বাবা সোমবার সকালে মারুফের বিরুদ্ধে গোদাগাড়ী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত মারুফের বাড়ি উপজেলার নবগ্রামে। তার বাবার নাম আজিজুল হক। আর অপহৃত ছাত্রী রাকিবা খাতুনের বাড়ি উপজেলার গোমা সিমলা গ্রামে। তার বাবার নাম রাকিব আলী।

রাকিব আলী তার অভিযোগে বলেছেন, তার মেয়ে চলতি জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। গত রোববার সকাল ১০ টার দিকে রাকিবা কাঁকনহাট কেন্দ্রে পরীা দিতে যায়। সেখান থেকে মারুফ তার মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যান।

রাকিব আলী বলেন, পরীা শেষে রাকিবা বাড়ি ফিরে না আসায় তিনি খোঁজখবর নিতে শুরু করেন। এ সময় রাকিবার সহপাঠীরা জানায়, মারুফ তার মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অপহরণ করে নিয়ে গেছেন। যদিও মারুফ একজন বিবাহিত যুবক। ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে সেবা নিতে গিয়ে মারুফের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল রাকিবার।

গোদাগাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাকিবাকে উদ্ধারে পুলিশি তৎপরতা শুরু হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোদাগাড়ী সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বলেন, রোববার দুপুর ১টার দিকে ডিজিটাল সেন্টার থেকে ছুটি নিয়ে গেছেন মারুফ। সোমবার তিনি অফিসে আসেননি। অপহরণের বিষয়টি তার জানা নেই। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে মারুফের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান চেয়ারম্যান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মনির হোসেন বলেন, এ বিষয়ে তার কাছে কেউ অভিযোগ করেননি। তবে বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজখবর নেয়া হবে। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে উদ্যোক্তা মারুফের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।