Ad Space

তাৎক্ষণিক

সাব্বিরের ১২২ রানের পরও রাজশাহীর হার

নভেম্বর ১৩, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বরিশাল বুলসের ১৯৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে সাব্বির রহমানের বিধ্বংসী সেঞ্চুরির পরও হেরে গেছে রাজশাহী কিংস। শেষ ওভারে নুরুল হাসান সোহান প্রয়োজনীয় রান তুলতে ব্যর্থতার পরিচয় দিলে ৪ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মুশফিকুরের রহিমের বরিশাল। অথচ ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে ম্যাচটিকে একেবারের হাতের নাগালে নিয়ে আসেন সাব্বির। ২০০ স্ট্রাইক রেটে ৬১ বলে ১২২ রান, ক্রিজে কতটা বিধ্বংসী ছিলেন সাব্বির, তার প্রমাণ।

তবে দল হারলেও তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে বিপিএলে সেঞ্চুরিয়ানদের তালিকায় লেখালেন এই টাইগার ব্যাটসম্যান। এর আগে বিপিএলে সেঞ্চুরি ছিল শাহরিয়ার নাফিস ও মোহাম্মদ আশরাফুলের।

রবিবার বরিশাল বুলসের বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকেই সাব্বিরের ব্যাট ছিল খাপ খোলা তলোয়াড়। তার ধারালো ব্যাটিংয়ের সামেন কোন প্রভাবই বিস্তার করতে পারেনি বরিশালের বোলাররা। মনির, আলআমিন, আবু হায়দার ও তাইজুলদের রীতিমত ধুঁকতে হয়েছে তার ব্যাটিংয়ের সামনে। সাব্বিরের ঝড়ে উড়ে গেছেন বরিশালের প্রতিটি বোলার। আর এই ঝড়ো ব্যাটিং দিয়েই ২৬ বলে তিন চার ও চার ছয়ের সাহায্যে তুলে নেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক। পরের ৫০ রান আসে ২৭ বলে। শেষ পর্যন্ত ৬১ বলে ৯ চার ও ৯ ছক্কার সাহায্যে ১২২ রানে তিনি আউট হন। তখন জয়ের জন্য রাজশাহীর দরকার ছিল ২৪ বলে ২৪ রান। অথচ বরিশালের বোলারদের দারুণ প্রত্যার্পণে এই সহজ লক্ষ্যটা ছুঁতেই পারলো রাজশাহী।

এর আগে, অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম ও শাহরিরার নাফিসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৯২ রান তুলে বরিশাল। তবে শুরুুটা মোটেও ভালো হয়নি বরিশালের। দলীয় স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ হওয়ার আগেই প্যাভিলনে ফেরেন বরিশালের ইংলিশ ওপেনার দাউদ মালান। তার জায়গায় ব্যাটিংয়ে নামেন নাফিস। এরপর ১১ বলে ১২ রানে মুমিনুল ফিরলে ব্যাটিয়ে আসেন মুশফিক। সেখান থেকে প্রতিরোধ শুরু। এরপর দু’জনে খেলেছেন হাত খুলে। ব্যক্তিগত ৪৪ বলে ৪ ছক্কা ও ৪ চারে নাফিস ৬৩ রানে ফিরলেও ৮১ রানে অপরাজিত থাকেন মুশফিক। তার ৫২ বলের ইনিংসে ছিল ৫ চার ও ৪ ছক্কার মার। এছাড়া শেষ দিকে থিসারা পেরেরা ১১ বলে তিন ছক্কার সাহায্যে ২৪ রান তুলে নিয়ে ১৯৩ রানের বিশাল টার্গেট রাজশাহীর সামনে দাঁড় করায় বরিশাল।