Ad Space

তাৎক্ষণিক

লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

নভেম্বর ৮, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক : সকালে শীতল বাতাস। বাতাসে বরফ অনুভুতি। ভোরে কুয়াশা জমে থাকছে ঘাসে আর লতা পাতায়। সন্ধ্যা নামতেই শরীরে শীতের ছোঁয়া। প্রকৃতিতে শীত নামতে দেরি নেই। সপ্তাহ দুয়ের মধ্যেই শীত নেমে যাবে। তাই প্রস্তুতির প্রয়োজন। আগাম প্রস্তুতি হিসেবে হিঁড়িক পড়েছে লেপ-তোষক বানানোর।

রাজশাহী মহানগরীর তুলাপট্টি এলাকার কারিগররা এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন লেপ-তোষক বানানোর কাজে। ক্রেতাদের আনাগোনায় জমজমাট হয়ে উঠেছে লেপ-তোষক এর দোকানগুলো।

তুলাপট্টি এলাকার কারিগররা জানান, শীত নামতেই লেপ-তোষক কেনার জন্য ক্রেতাদের ভিড় লেগে যাবে। সে কারণে আগাম লেপ-তোষক তৈরি করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই অসংখ্য ওয়ার্ড হাতে এসে পড়েছে।

কারিগররা আরো জানান, একটি লেপ তৈরিতে একজন কারিগরের সময় লাগে এক থেকে দেড় ঘণ্টা। এভাবে একজন কারিগর দিনে গড়ে ৫ থেকে ৬টি লেপ তৈরি করতে পারেন। অনুরুপভাবে দিনে ৫ থেকে ৬টি তোষক তৈরিতেও একই সময় ব্যয় হয়।

লেপ-তোষক তৈরি করতে তুলাসহ যেসব মালামালের প্রয়োজন হয় তার দাম এখন বেশ চড়া। সে কারণে একটি লেপ তৈরি করতে খরচ অনেক বেশি পড়ে যাচ্ছে। একটি মাঝারি সাইজের লেপ তৈরি করতে ৪ কেজি তুলার প্রয়োজন। প্রতি কেজি তুলার দাম ১২০ টাকা। ১০ গজ কাপড়ের দাম ৩৫০ টাকা, শ্রমিক মজুরি যায় ২৫০ টাকা ও সেলাই খরচ লাগে ২০ থেকে ৩০ টাকা।

সব মিলিয়ে একটি লেপ তৈরি করতে এক হাজার টাকা খরচ হয়। বিক্রি হয় এক হাজার ২০০ টাকা থেকে এক হাজার ৩০০ টাকা পর্যন্ত।

তুলা ব্যবসায়ী হাবিব জানান, শীত মৌসুমের পুরো তিন মাস কারিগররা যে হারে লেপ-তোষক, গদি তৈরিতে ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করে বছরের অন্য সময় তা হয় না। বছরের প্রায় ৮ মাস তাদের অনেকটা অলস সময় কাটাতে হয়। কেউ কেউ ভিন্ন পেশায় নিয়োজিত হয়।