Ad Space

তাৎক্ষণিক

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে সরকার বদ্ধপরিকর : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নভেম্বর ৫, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক ,বাঘা : মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও রাজশাহী ৬ আসনের সংসদ সদস্য শাহরিয়ার আলম বলেছেন, দেশে উৎপাদন বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে ক্ষুধা-দারিদ্র মুক্ত  এবং সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। এ জন্য সামনের দিনে দুর্নীতিমুক্ত এজেন্ডা হাতে নেয়া হয়েছে। এই এজেন্ডার আওতায় অপরাধী যেই হোক না কেন তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শনিবার দুপুরে বাঘা পৌরসভা কার্যালয়ে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের শুভ উদ্বোধন এবং ৪৫ তম জাতীয় সমবায় দিবসের মঞ্চে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বাঘা পৌর মেয়র আক্কাস আলীর সভাপতিত্বে আয়োজিত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধনী সভায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, এক সময় দেশের অর্ধেক মানুষ দরিদ্র ছিল। কিন্তু এখন নেই। আগামিতে এর সংখ্যা আরো কমে আসবে।

তিনি বলেন, আমরা সামগ্রীক ভাবে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। আর এগুলো অধিকাংশ সম্ভব হয়েছে পৌরসভার মাধ্যমে। তিনি বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়নের আওতায় যে তিনটি পৌরসভা স্থান পেয়েছে তার মধ্যে বাঘা পৌরসভাকে অর্ন্তভুক্ত করে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ এনে দিয়েছেন বলে জানান।

এর আগে বাঘা উপজেলা হলরুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ৪৫ তম জাতীয় সমবায় দিবস উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভার মঞ্চে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, সমবায়ের মূল লক্ষ গ্রামিন অর্থনীতি। আমরা গ্রামিন অর্থনীতিকে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। সেই সাথে গুরুত্ব দিয়ে থাকি তৃণমূলের রাজনীতি থেকে উঠে আসা ব্যক্তিদের। তিনি সমবায় আন্দোলনের মাধ্যমে এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় টেকশই উন্নয়ন ও দরিদ্রতা দুর করার আহবান জানান।

তিনি বলেন, চক্রান্তকারীরা কখনোই কোন কাজে সফল হতে পারে না। তাদের চিহিৃত করেন। বাংলাদেশের উন্নয়নে যারা বাধাগ্রস্থ করবে কিংবা সাম্প্রদায়িকতার সৃষ্টি করবে তাদের আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাঘা পৌর মেয়র আক্কাস আলী, বাঘা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিউর রহমান শফি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজিজুল আলম, আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল ইসলাম, বাঘা মোজাহার হোসেন মহিলী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আবদুল লতিফ মিয়া ও কান্তা রানী। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলার সকল দফতরের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মী এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।