Ad Space

তাৎক্ষণিক

রাবিতে দরপত্র প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগ

নভেম্বর ৩, ২০১৬

রাবি প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) প্রকৌশল দফতরের বিরুদ্ধে দরপত্র প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। রাজশাহী নগরীর তামিম কনস্ট্রাকশনের মালিক তামিম হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি দরপত্র জমা দেয়ার সময় নিয়ে কারচুপির অভিযোগ করেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে দরপত্র প্রক্রিয়াটি সংশোধনের জন্য উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য দফতরে একটি অভিযোগ পত্র দেয়া হয়।

অভিযোগ পত্রে বলা হয়, গত ১৯ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ে সোলার প্যানেল স্থাপনের জন্য প্রকৌশল দফতর থেকে একটি দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্র ক্রয়ের শেষ সময় ২ নভেম্বর দুপুর ৩টা পর্যন্ত দেয়া হয়। কিন্তু দরপত্রের ব্যাংক গ্যারান্টি (বিডি) জমা দেয়ার শেষ সময় ওই দিন ১টা ৪৯ মিনিট দেখানো হয়েছে।

দরপত্রের ব্যাপারে তামিম হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘যে কোন দরপত্রের নিয়ম অনুযায়ী আগে সিডিউলের সময় দেয়া হয় তারপর ব্যাংক গ্যারান্টির (বিডি) সময় দেয়া হয়। তবে এই দরপত্রের ক্ষেত্রে প্রকৌশল দফতর সম্পূর্ণ নিয়মভঙ্গ করেছে। দরপত্রের সময় শেষ হওয়ার আগেই বিডি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ কারনে এক হাজার টাকা দিয়ে দরপত্র কিনেও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তা ড্রপ করা যায়নি। এজন্য আমি দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে দরপত্র কিনে আড়াইটায় দরপত্র সিকিউরিটি ই-জিপিতে ব্যাংক এর মাধ্যমে জমা দিতে পারিনি। এটি দরপত্র প্রত্রিয়ার সম্পূর্ণ অনিয়ম।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রকৌশল দফতরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এসএম ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমানে  ইলেকট্রনিক মেইলের মাধ্যমে দরপত্রগুলোর আহ্বান থেকে শুরু করে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। এটা বাংলাদেশ সরকারের সেন্ট্রাল প্রক্রিয়মেন্ট ট্যাকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ) থেকে নিয়ন্ত্রিত। এই পদ্ধতিতে দুর্নীতি করার কোন কারণ নেই। তবে এই দরপত্রের ক্ষেত্রে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে সময় নিয়ে একটু ঝামেলা হয়েছে।’

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এখনো আমার কাছে এধরনের কোন অভিযোগ আসেনি। এধরনের কোনো অভিযোগ পেলে তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’