অক্টোবর ২০, ২০১৭ ৮:০৫ অপরাহ্ণ

Home / slide / হাইকোর্টের কার্যতালিকায় চাঞ্চল্যকর চার মামলা

হাইকোর্টের কার্যতালিকায় চাঞ্চল্যকর চার মামলা

সাহেব-বাজার ডেস্ক : গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী মুক্তমনা ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দার ও সিলেটের শিশু রাজন হত্যা মামলার পাশাপাশি চাঞ্চল্যকর আরও দুইটি হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শুনানির উদ্যোগ নিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নির্দেশ অনুসারে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অপর মামলাগুলো হলো ঢাকায় পুলিশের বিশেষ শাখার (রাজনৈতিক) পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান হত্যা মামলা।

এই চার মামলার পাঁচ হত্যাকাণ্ডের আসামিরা মৃত্যুদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে। রাষ্ট্রপক্ষ থেকেও মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের লক্ষ্যে হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য পৃথক আবেদন করা হয়। এরপর প্রধান বিচারপতির নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট সম্প্রতি মামলাগুলোর পেপারবুক তৈরি করেন।

সোমবার (৩১ অক্টোবর) বহুল আলোচিত পাঁচটি হত্যার ঘটনায় দায়ের এই চারটি মামলা বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চের কার্যতালিকায় শুনানির জন্য অন্তর্ভুক্ত ছিল। দ্রুততম সময়ের মধ্যে কার্যতালিকা অনুসারে পর্যায়ক্রমে এ মামলাগুলো নিষ্পক্তি হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

হাইকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) সাব্বির ফয়েজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘চাঞ্চল্যকর এই চার মামলা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি। এ জন্য সুপ্রিম কোর্ট থেকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ মামলাগুলোর আপিল ও ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য পেপারবুক তৈরি করা হয়। ইতিমধ্যে মামলাগুলো হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে শুনানির জন্য কার্যতালিকাভুক্ত হয়েছে।’

ব্লগার রাজীব হত্যা মামলা : ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পল্লবীর কালশীর পলাশনগরে উগ্রপন্থী ধর্মীয় জঙ্গিদের হামলায় নিহত হন রাজীব। এ হত্যা মামলায় গত ৩১ ডিসেম্বর নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে মৃত্যুদণ্ড ও ছয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৩। যদিও মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তসহ বেশিরভাগ আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

রাজন ও রাকিব হত্যা মামলা : গত বছরের ৮ জুলাই চুরির অপবাদে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের শেখপাড়া এলাকায় নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয় সবজি বিক্রেতা শিশু রাজনকে (১৪)। পরে রাজনকে নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে প্রচারিত হলে দেশবাসী ক্ষোভে ফেটে পড়েন। ইন্টারপোলের মাধ্যমে গত বছরের ১৫ অক্টোবর সৌদি আরব থেকে রাজন হত্যার প্রধান আসামি কামরুল ইসলামকে দেশে ফিরিয়ে আনে পুলিশ।

গত বছরের ৩ আগস্ট খুলনায় এক মোটরসাইকেলের গ্যারেজে নির্যাতন করে হত্যা করা হয় শিশু রাকিবকে। চাঞ্চল্যকর এই দুই মামলায় গত ৮ নভেম্বর রায় দেন আদালত। রায়ে রাজন হত্যার প্রধান আসামি কামরুল এবং রাকিব হত্যার আসামি শরীফসহ ছয়জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

পুলিশ কর্মকর্তা ও তার স্ত্রী হত্যা মামলা : ২০১৩ সালের ১৬ আগস্ট পুলিশের বিশেষ শাখার (রাজনৈতিক) পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমানের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ১২ নভেম্বর ঢাকার একটি আদালত এ হত্যাকাণ্ডের অপরাধে তাদেরই মেয়ে ঐশী রহমানকে মৃত্যুদণ্ড দেন। কিন্তু ঐশীর বয়স বিবেচনায় অনেক ব্যক্তি ও সংগঠন এই মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে আসছে।

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

উখিয়াকে ন্যাড়া ভূমিতে পরিণত করেছে রোহিঙ্গারা

সাহেব-বাজার ডেস্ক : কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের উখিয়া-টেকনাফ রেঞ্জের প্রায় ৬ হাজার একর বন ভূমিতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *