Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • ‘আপত্তিকর’ কাজে বাধা দেয়ায় প্রহরীকে মারধর– বিস্তারিত....
  • বামশক্তি কনসোলিটেড হয়ে দাঁড়াতে না পারলে ফিল ইন দ্য ব্লাংক করে ফেলবে ধর্মীয় শক্তি : আবুল বারকাত– বিস্তারিত....
  • মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে হলে ভ্যাটের বিকল্প নেই : ভূমিমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙে পড়েছে কালভার্ট– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ইয়াবাসহ চার যুবক আটক– বিস্তারিত....

শিশু ধর্ষণ : মুখ খুলছেনা সাইফুল

অক্টোবর ৩১, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : দিনাজপুরের পার্বতীপুরে চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুল রিমান্ডের তৃতীয় দিনেও মুখ খোলেনি। স্বীকার করেনি তার অপরাধের কথা। দিনাজপুর পুলিশ লাইনে ৭ সদস্যের পুলিশের একটি সেলের মাধ্যমে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এদিকে, সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুলের সহযোগী ভণ্ড কবিরাজ আফজাল হোসেন বাদীয়াকে এখনো পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আফজাল হোসেন বাদীয়াকে গ্রেপ্তার করে কালা সাইফুলের মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করলে সাইফুলের নিকট থেকে স্বীকারোক্তি আদায় সহজ হতো বলে সংশ্লিষ্টজনেরা মনে করছেন।

আফজাল হোসেন বাদীয়ার স্ত্রী রেহানা খাতুন (৩৮) বলেছেন, মেয়েটির (ভিক্টিম) বাবাকে নিয়ে কালা সাইফুল আমার স্বামীর কাছে এসেছিল বলে আমি শুনেছি। তবে আমি সেদিন ল্যাম্ব হাসপাতালে ছিলাম অসুস্থ মেয়েকে নিয়ে।

তিনি আরও বলেন, শুনেছি শিশুটির পিতা আমার স্বামীর পা ধরে মেয়ের সন্ধান জানতে চেয়েছিলো। আর কালা সাইফুলের সাথে কী কথা হয়েছিল সে তার অপরাধের কথা কবিরাজকে বলেছিল (স্বীকার করেছিল) কিনা এসবের কিছুই সে জানে না বলে উল্লেখ করে।

এদিকে পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহমুদুল আলম জানান, এখন পর্যন্ত সাইফুল ইসলাম মুখ খোলেনি। অপরাধ স্বীকার করেনি বলে তিনি উল্লেখ করেন।

প্রসঙ্গতঃ দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার ৩নং রামপুর ইউনিয়নের জমিরহাট এলাকার তকেয়াপাড়া গ্রামের ৫বছর বয়সী শিশু কন্যা গত ১৮ অক্টোবর বাড়ীর পাশে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। শিশুটির পিতা ও তার স্বজনেরা খোঁজা খুঁজি করে শিশুটিকে না পেয়ে ওই দিন রাতে থানায় একটি জিডি করেন। পরদিন ভোরে বাড়ী সংলগ্ন একটি হলুদ ক্ষেতের ভেতর শিশুটিকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। প্রথমে তাকে স্থানীয় ল্যাম্ব হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শিশুটিকে আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

পরে শিশুটির বাবা প্রতিবেশি মৃত জহির উদ্দিনের ছেলে সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুল (৪০) ও বাদীয়া পাড়ার জাফর উদ্দিনের পুত্র আফাহ উদ্দিন কবিরাজকে (৪৮) আসামী করে পার্বতীপুর মডেল থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।