Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • ‘আপত্তিকর’ কাজে বাধা দেয়ায় প্রহরীকে মারধর– বিস্তারিত....
  • বামশক্তি কনসোলিটেড হয়ে দাঁড়াতে না পারলে ফিল ইন দ্য ব্লাংক করে ফেলবে ধর্মীয় শক্তি : আবুল বারকাত– বিস্তারিত....
  • মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে হলে ভ্যাটের বিকল্প নেই : ভূমিমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙে পড়েছে কালভার্ট– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ইয়াবাসহ চার যুবক আটক– বিস্তারিত....

দেশের প্রথম সৌর ও বায়ু বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপিত হচ্ছে সোনাগাজীতে

অক্টোবর ৩০, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ফেনীর সমুদ্র উপকূলীয় সোনাগাজীতে স্থাপিত হচ্ছে দেশের প্রথম সৌর ও বায়ু বিদ্যুৎকেন্দ্র। গত ৯ আগস্ট জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে সৌর ও বায়ু বিদ্যুৎ প্রকল্পটির অনুমোদন দেয়া হয়। এটি চালু হলে জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে তিনশ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। এরই মধ্যে স্থান নির্ধারণের পর এখন চলছে ভূমি অধিগ্রহণের কাজ।

২০০৬ সালে ফেনীর সোনাগাজীতে পাইলট প্রকল্পের আওতায় পরীক্ষামূলক সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য চারটি টারবাইন স্থাপন করা হয়। এক মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতার এ প্রকল্প বিভিন্ন সমস্যার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। অনাবাদী এই চরাঞ্চলে এখন দেশের প্রথম বায়ু ও সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের কাজ চলছে। ইতোমধ্যে চর চান্দিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ চর চান্দিয়া ও পূর্ব বড়ধলি এলাকায় সরকারি খাস ভূমির এক হাজার ৩৪২ একর জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। যার মধ্যে ইজিসিপিকে এক হাজার একর ও পিডিপিকে ৩৪২ একর জায়গা দেওয়া হবে। এখানে ইজিসিপি একশ মেগাওয়াট বায়ু ও একশ মেগাওয়াট সৌর এবং বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড একশ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করবে।

ফেনীর জেলা প্রশাসক আমিন উল আহসান জানান, ইতোমধ্যে ১৩৪২ একর ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়াধীন আছে। যার মধ্যে প্রকল্পের আওতায় প্রায় এক হাজার একর জমি (৯৯৯.৯৬ একর জমি) ভূমি অধিগ্রহণের জন্য প্রাথমিক কাজ শেষ করে ভূমি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আরও ৩৪২ একর ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা অচিরেই তা অধিগ্রহণ করে ভূমি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবো। এই জায়গা বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মহোদয়ও দেখে গেছেন।

ফেনী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো. মিজানুর রহমান জানান, সোনাগাজীতে যে পাওয়ার প্ল্যান্টটা হচ্ছে সেটা একটা উপযুক্ত জায়গা। ওখানে বায়ু প্রবাহ খুব বেশি, বায়ু বিদ্যুৎএর জন্য বায়ু প্রবাহের বিষয় আছে। জায়গাটি যথেষ্ট উপযোগী জায়গা। ওখান থেকে জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ নেয়ার যথেষ্ট সুবিধা আছে।

পিডিপি, ফেনীর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, ফেনীর সোনাগাজীর চর অঞ্চলে ইজিসিপি কর্তৃক একশ মেগাওয়াট সোলার ও একশ’ মেগাওয়াট বায়ুবিদ্যুৎ এবং পিডিপি কর্তৃক একশ মেগাওয়াট সৌলার এই প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হলে এই অঞ্চলে বিদ্যুতের উন্নতি হবে। এখানে বেজা কর্তৃক অর্থনৈতিক অঞ্চল করার পরিকল্পনা রয়েছে। এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহ তথা জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহের যুগান্তকারী উন্নতি হবে। আমাদের নবায়নযোগ্য জ্বালানি জেনারেশন বড় ধরনের একটি উন্নতি পাওয়া যাবে। প্রকল্পের দায়িত্বশীলদের দাবি, এশিয়া ও আন্তর্জাতিক পরিসরের এটি একটি বড় মডেল। বাংলাদেশের প্রথম এই সর্ববৃহৎ প্রকল্পটি ২০১৮ সালের মধ্যেই কাজ দৃশ্যমান হতে শুরু করবে।

প্রসঙ্গত, এখানে ১০ হাজার একর জায়গায় গড়ে উঠছে বিমানবন্দর, জাহাজ নির্মাণ কারখানা ও অটোমোবাইল সার্ভিসসহ ভারী শিল্প কারখানা।