Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • ‘আপত্তিকর’ কাজে বাধা দেয়ায় প্রহরীকে মারধর– বিস্তারিত....
  • বামশক্তি কনসোলিটেড হয়ে দাঁড়াতে না পারলে ফিল ইন দ্য ব্লাংক করে ফেলবে ধর্মীয় শক্তি : আবুল বারকাত– বিস্তারিত....
  • মধ্যম আয়ের দেশ গড়তে হলে ভ্যাটের বিকল্প নেই : ভূমিমন্ত্রী– বিস্তারিত....
  • নাটোরে নির্মাণের ৯ মাসেই ভেঙে পড়েছে কালভার্ট– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ইয়াবাসহ চার যুবক আটক– বিস্তারিত....

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে বৃষ্টির হুমকি

অক্টোবর ২৭, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : শুক্রবার ঢাকার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট। কিন্তু এর আগেই হুমকি হয়ে এলো বৃষ্টি! ঘূর্ণিঝড় কায়ান্টের প্রভাবে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ঢাকার আকাশ কাঁদছে। ঘূর্ণিঝড়টির বাংলাদেশে আঘাত হানার সম্ভাবনা কম হলেও আগামীকাল নাগাদ এটি বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে কিনা সে বিষয়ে এখনো স্পষ্ট ইঙ্গিত নেই আবহাওয়া অধিদপ্তরের।

আজ বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের ২০তম বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ট’ আরও পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে একই এলাকায় (১৫.৮ ডিগ্রি উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৫.৮ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আজ সকাল ০৯ টায় (২৭ অক্টোবর ২০১৬)  চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৭৫ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৩০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৫৫ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮৫০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

গভীর নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৮ কি. মি. এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৫০ কি. মি. যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৬০ কি. মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গভীর নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দর সমূহকে ০২ (দুই) নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারী সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ০১ (এক) নম্বর পুনঃ ০১ (এক) নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

প্রায় ১৫ মাস টেস্ট ক্রিকেটে নামা হয়নি বাংলাদেশের। ২০০০ থেকে মাত্র ৯৪ টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে বেশ কিছু বৃষ্টির কবলে পড়েছে। গত বছর ভারতের বিপক্ষে একমাত্র ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দু’টি টেস্টই বৃষ্টিতে ড্র হয়েছে। তাতে খুব আক্ষেপে পুড়তে হয়েছিল টাইগারদের। আফসোস ছিল প্রতিপক্ষেরও। তবে তখন ছিল জুন-জুলাই মাস। এখন অক্টোবরের শেষ। এই হঠাৎ বৃষ্টির প্রভাব বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড টেস্টে প্রভাব পড়বে না বলে আশা করছে সবাই। কিন্তু নিম্নচাপ কায়ান্ট কি তা হতে দেবে?