Ad Space

তাৎক্ষণিক

  • মোহনপুরে বাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত, এসআই আহত– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুই মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু– বিস্তারিত....
  • রাজশাহীতে ঈদের জামাতে জঙ্গিবাদ পরিহারের আহ্বান– বিস্তারিত....
  • ঈদ শুভেচ্ছা কমেছে কার্ডে, বেড়েছে পোস্টারে– বিস্তারিত....
  • নাটোরে ব্যাংকের বুথে টাকা শূণ্য, ভোগান্তিতে গ্রাহকরা– বিস্তারিত....

ইফতারের বিশেষ রেসিপি

জুন ১০, ২০১৬

সাহেব-বাজার ডেস্ক : পবিত্র রমজান শুরু হয়েছে। সারাদিন না খেয়ে থাকার পর পিপাসার্ত হৃদয় নিয়ে রোজাদাররা ইফতার করে। গুরুত্বপূর্ণ এই মুহুর্তটি রোজাদারের কাছে এক তৃপ্তিদায়ক মুহূর্ত। ইফতারের সময় কী কী খেলে রোজাদাররা তৃপ্তি পাবেন সে বিষয়ে এখানে দেয়া হলো বিশেষ রেসিপি।

ইফতারের জরুরি অনুষঙ্গ হচ্ছে যে কোন ধরনের পানীয়। আর সেটা যদি হয় সুস্বাদু ঠাণ্ডা শরবত তাহলে তো কথাই নেই। রোজার মাসে শরবত তৈরির নানা উপাদান বাজারজাত করে বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। হাতের কাছের নানা সামগ্রী ব্যবহার করেও বাড়িতেই বানানো যায় নানারকম শরবত। রোজা ভাঙার পর যা হয়ে উঠতে পারে রোজাদারদের জন্য তৃষ্ণার শান্তি।

ফ্রুটস লাচ্ছি

যেসব উপাদান লাগবে: পাকা আম টুকরো করা ১ টেবিল চামচ, লিচু টুকরো ২টি, পাকা কলা টুকরো ১ টেবিল চামচ, আপেল টুকরো ১ টেবিল চামচ, চিনি ২ টেবিল চামচ, ঘন দুধ ১ কাপ, মিষ্টি দই ২ কাপ এবং বরফ কুচি পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: প্রথমে চিনির সঙ্গে অন্যান্য ফল একটু ব্লেন্ড করে নিন। এরপর এর সঙ্গে মিষ্টি দই এবং ঘন দুধ মিশিয়ে ব্লেন্ড করুন। বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন ফ্রুটস লাচ্ছি।

মালটার জুস

যেসব উপাদান লাগবে: মালটা ২টি, বিট লবণ স্বাদ অনুযায়ী, চিনি সামান্য, পুদিনা পাতা ২-৩টি এবং পানি প্রয়োজন মতো, বরফের টুকরা আধা কাপ।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: প্রথমে মালটার খোসা ছাড়িয়ে নিন। শুধু ভেতরের অংশ নিন বীচি ফেলে দিয়ে তার সঙ্গে অন্যসব উপকরণ নিয়ে একসঙ্গে ব্লেন্ড করে গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন।

ডাব পুদিনার শরবত

যেসব উপাদান লাগবে: বড় ডাব ১টি (শাঁসসহ), পুদিনা পাতা কুচি করা আধা চা চামচ, বিট লবণ সামান্য, চিনি সামান্য, ডাবের শাঁষ ২ টেবিল চামচ, পাতলা পাতলা, করে কেটে নেয়া। বরফ টুকরো কয়েকটি।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: ডাবের পানির সঙ্গে অন্যান্য উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এরপর ব্লেন্ডারে অল্প ব্লেন্ড করে নিন। গ্লাসে ঢেলে বরফ কুচির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

ম্যাঙ্গো নাট জুস

যেসব উপাদান লাগবে: পাকা আম ১টি টুকরো করা, কাজুবাদাম ২ টেবিল চামচ, ঘন দুধ ২ কাপ, চিনি পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: পাকা আম, ঘন দুধ, চিনি এবং কাজুবাদাম একসঙ্গে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশ করুন এই গরমে।
তৃপ্তির ইফতার

পনির পিয়াজু

যেসব উপাদান লাগবে: মসুর ডাল ২৫০ গ্রাম, পনির গ্রেট করা ১০০ গ্রাম, পেঁয়াজ মিহি কের কাটা আধা কাপ, কাঁচামরিচ কুচি ১ চা চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, ভাজার জন্য তেল পরিমাণ মতো, পানি পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: প্রথমে মসুর ডাল ভালো করে ধুয়ে ১ ঘণ্টা ভিজিযে রাখুন। পাটায় বাটুন। এর সঙ্গে সব উপকরণ মাখিয়ে নিন। শেষে গ্রেট করা পনির মাখিয়ে নিন। তেল গরম করে এতে ডালের মিশ্রণ গোল গোল এবং চ্যাপটা আকারে বড়ার মতো মচমচে করে ভেজে তুলুন। পরিবেশন করুন বিভিন্ন ধরনের সস বা চাটনির সঙ্গে।

সবজি হালিম

যেসব উপাদান লাগবে: পোলাওয়ের চাল ১০০ গ্রাম, মসুর ডাল ১০০ গ্রাম, মাষকলাইয়ের ডাল ৫০ গ্রাম, মুগডাল ১০০ গ্রাম, বুটের ডাল ৫০ গ্রাম, গমের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কিউব করে কাটা ১ কাপ, মিহি করে পেঁয়াজ কাটা ২ টেবিল চামচ, আস্ত কাঁচামরিচ ১০-১২টি, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, আদা কুচি মিহি করে কাটা ১ চা চামচ, লেবু টুকরো করা, হলুদ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, আদা বাটা আদা টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, ঘি ১ টেবিল চামচ, তেল পরিমাণমতো, পানি পরিমাণ মতো, তেঁতুলের ঘন পানি আধা কাপ, গাজর, টমেটো, ফুলকপি ছোট ছোট টুকরো করা, শুকনো মরিচ ৫-৬টি। হাড়সহ ছোট ছোট টুকরো গরুর মাংস ৫০০ গ্রাম, হালিমের মশলা ২ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: প্রথমে মাংস ভালো করে ধুয়ে রাখুন। এরপর পাতিলে তেল গরম করে এতে পেঁয়াজ এবং আস্ত গরম মশলা দিয়ে ভাজুন। বাটা ও গুঁড়া মশলা স্বাদ অনুযায়ী লবণ এবং পরিমাণ মতো পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন। এরপর এতে মাংস দিন। ভালো করে কষিয়ে পরিমাণ মতো পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। মাংস হয়ে এলে এতে হালিমের মশলা ও কাঁচা মরিচ দিয়ে নেড়ে নামিয়ে রাখুন। হালিমের শষ্য আলাদা আলাদা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। প্রায় ৪-৫ ঘণ্টা। এরপর সব শষ্য একসঙ্গে মিশিয়ে ধুয়ে নিন। কিছুক্ষণ গরম পানিতে ভিজিয়ে রেখে সিদ্ধ করুন। এরপর রান্না করা মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন। খেয়াল রাখুন নিচে যাতে লেগে না যায়। সব সবজি ধুয়ে নিন। হালিম প্রায় সিদ্ধ হয়ে এলে এতে আরও হালিমের মশলা এবং সবজিগুলো দিয়ে নাড়তে থাকুন। হালিম ঘন হলে নামিয়ে নিন। এরপর গরম গরম হালিমের সঙ্গে আদা কুচি, পেঁয়াজ বেরেস্তা, ধনেপাতা ও কাঁচামরিচ কুচি, তেঁতুল পানি বা লেবুর রস দিয়ে পরিবেশন করুন।

ডিম বেসন বড়া

যেসব উপাদান লাগবে: সিদ্ধ ডিম ২টি, বেসন ১ কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া সামান্য, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, রসুন বাটা আধা চা চামচ, ভাজার জন্য তেল পরিমাণ মতো, পানি পরিমাণ মতো এবং খাওয়ার সোডা সামান্য।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: সিদ্ধ ডিমের খোসা ছাড়িয়ে নিন। গোল গোল করে কাটুন। বেসনের সঙ্গে অন্যান্য উপকরণ একসঙ্গে মাখিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি করুন। তেল গরম করুন, টুকরো করা সিদ্ধ ডিম বেসনে ডুবিয়ে গরম গরম তেলে ভেজে তুলুন। পরিবেশন করুন যে কোনো সস বা চাটনির সঙ্গে।

সবজি ভাত

যেসব উপাদান লাগবে: গাজর, বরবটি, ফুলকপি, পেঁপে, বাঁধাকপি, ক্যাপসিকাম সব তরকারি মিলিয়ে ১ কাপ, মিহি করে বা ছোট ছোট টুকরো করা। বাসমতি চাল ১ কাপ, পেঁয়াজ টুকরো করে কাটা ২টি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া সামান্য, ঘি ১ চা চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: চাল ও সবজি একসঙ্গে সিদ্ধ করে পানি ফেলে দিন। একটি প্যানে ঘি গরম করুন। পেঁয়াজ ও ধনেপাতা হালকা করে ভেজে নিন। সিদ্ধ করা সবজি ও ভাত এতে দিয়ে ভালো করে নেড়ে নামিয়ে ফেলুন। তৈরি করা সবজি ভাত মাছের ঝোল বা মুরগির ঝোলের সঙ্গে খাওয়া যেতে পারে।

সেহরির জন্য রেসিপি

পবিত্র মাহে রমজানে একটি অপরিহার্য বিষয় হচ্ছে সেহরি। আমরা নিজ নিজ সামর্থ অনুযায়ী রকমারী সেহরির আয়োজন করে আসছি। সে ক্ষেত্রে কিছু বৈচিত্র্যের জন্য দেয়া হচ্ছে কয়েকটি অন্যরকম রেসিপি

রুই কোরমা

যেসব উপাদান লাগবে: রুই মাছ বড় বড় ৪ পিস, আদা বাটা আধা চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, ঘি ১ টেবিল চামচ, তেল পরিমাণ মতো, টক দই ২ টেবিল চামচ, চিনি আধা চা চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, এলাচ ২টি, দারুচিনি আধা টুকরো, তেজপাতা ১টি, কাঁচামরিচ আস্ত ৫-৬টি, বাটা পেঁয়াজ ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: প্যানে তেল গরম করুন। মাছের টুকরোগুলো ধুয়ে নিন। লবণ ও আদা-রসুন মাখিয়ে গরম তেলে হালকা করে ভেজে তুলুন প্যানে তেল ও ঘি একসঙ্গে গরম করে নিন। পেঁয়াজ ও গরম মশলা হালকা বাদামি করে ভেজে এতে বাটা মশলাগুলো দিন। সামান্য পানি দিয়ে কষিয়ে নিন। কষানো হলে এতে রুই মাছ, কাঁচামরিচ এবং অল্প পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন প্রায় ৫ মিনিট। মাখা মাখা করে নামিয়ে ফেলুন। পরিবেশন করুন ভাত বা পোলাওয়ের সঙ্গে।

ক্যাপসিকাম বিফ ভুনা

যেসব উপাদান লাগবে: বিফ হাড়সহ ছোট ছোট টুকরো করা ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজ টুকরো ৮-১০টি, গরম মশলা গুঁড়া ১ চা চামচ, আদা বাটা-রসুন বাটা ১ চা চামচ করে, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, তেল পরিমাণ মতো, ক্যাপসিকাম টুকরো ২ কাপ।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: মাংস ধুয়ে নিন। এতে সব মশলা মাখিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। পাতিলে তেল গরম করুন। পেঁয়াজ ভাজুন, ভাজা হলে এতে মাখানো মাংস দিয়ে নাড়তে থাকুন। অল্প পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। প্রায় সিদ্ধ হয়ে এলে এতে ক্যাপসিকাম টুকরো, গরম মশলা গুঁড়া এবং কাঁচামরিচ দিয়ে ভুনা ভুনা করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

পেঁপে মুরগির ঝোল

যেসব উপাদান লাগবে: দেশী মুরগি ১টি টকুরা করা, পেঁয়াজ কুচি ২টি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, আস্ত গরম মশলা এলাচ ২টি, দারুচিনি ১ টুকরো, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, তেল পরিমাণ মতো এবং পানিও পরিমাণ মতো, পেঁপে টুকরো করা ২ কাপ, ২টি আস্ত কাঁচামরিচ।

প্রস্তুত করবেন যেভাবে: মুরগির মাংস ভালো করে ধুয়ে নিন। পেঁপের টুকরো ধুয়ে রাখুন। পাতিলে তেল গরম করুন। পেঁয়াজ ও গরম মশলা হালকা করে ভেজে এতে একে একে সব বাটা, গুঁড়া মশলা, স্বাদ অনুযায়ী লবণ এবং অল্প পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন। মশলা কষানো হলে এতে মুরগি দিন। মুরগির মাংস ভালো করে কষিয়ে তুলে রাখুন। ওই মশলায় টুকরো পেঁপে দিয়ে ঢেকে সিদ্ধ করুন। পেঁপে প্রায় সিদ্ধ হয়ে এলে এতে কষানো মুরগি, সামান্য জিরা গুঁড়া এবং পরিমাণ মতো পানি দিয়ে আবার ঢেকে রান্না করুন। ঝোল থাকতেই কাঁচামরিচ দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন ভাত বা রুটির সঙ্গে পেঁপে মুরগির ঝোল।