ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭ ৮:০০ অপরাহ্ণ

Home / slide / পুঠিয়ায় পুকুর ইজারা নিয়ে লুকোচুরি!

পুঠিয়ায় পুকুর ইজারা নিয়ে লুকোচুরি!

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়া : চলতি বছর রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় একশ’ ৮টি খাস ও ১৩ টি অর্পিত ভি.পি সম্পত্তির পুকুর ইজারা নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। পুকুর গুলো বর্তমান ক্ষমতাসিন দলের একজন প্রভাবশালী নেতা ও উপজেলা প্রশাসন ইজারা বানিজ্য করতে গড়িমসি শুরু করেছেন বলেও মৎস্যজীবিরা অভিযোগ তুলেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানাগেছে, চলতি বছর উপজেলায় একশ’ ২১ টি পুকুর সরকারী নিয়ম অনুসারে আগামী বাংলা সনের তিন বর্ষরের জন্য ইজারার প্রস্তুতি নেন উপজেলা প্রশাসন ও ভূমি কমিশনার। এর মধ্যে একশ’ ৮টি খাস ও ১৩ টি অর্পিত পুকুর রয়েছে। সে অনুসারে গত ৩০ মার্চ খাস ও অর্পিত পুকুর গুলো ইজারা দেয়ার দিন নিধারন করা ছিল। ওই দিন ইজারা গ্রহণকারীরা সময়মত ডাকে অংশ গ্রহণ না করায় ডাক স্থগিত হয়ে যায়। অপরদিকে গত ৫ এপ্রিল অর্পিত পুকুরের ডাকের দিন ধার্য থাকলেও অনিবার্য কারণ দেখিয়ে উপজেলা ভূমি কমিশনার ডাক স্থগিত করেন।

এ বিষয়ে পুকুর ইজারায় অংশ গ্রহণকারী পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহরিয়ার রহিম কনক দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, খাস ও অর্পিত পুকুর গুলো ইজারার জন্য গত ৩০ মার্চ এবং ৫ এপ্রিল দু’দফা ডাকে অংশ গ্রহণ করেছিলাম। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন আমাদের সকাল সাড়ে দশটা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত তাদের অফিসে বসিয়ে রেখে ডাক স্থগিত বলে ঘোষনা করেন। আমরা স্থগিতের বিয়টি উপজেলা ভূমি কমিশনারের নিকট জানতে চাইলে তিনি আমাদের জানান, উপর মহলের নিদের্শে ডাক স্থগিত করা হয়েছে। উপর মহল নিদের্শ দিলে পূর্ণরায় পুকুর গুলো ডাক দেওয়া হবে। কনক আরো বলেন, পুকুর গুলো নিয়ে রাজনৈতিক এক প্রভাবশালী নেতা ও প্রশাসন সরকারী রাজস্ব কমিয়ে নিজেরা লাখ লাখ টাকা বানিজ্য করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। এ বিষয়ে আমরা মৎস্য চাষীরা বৃহস্পতিবার (আজ) জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করবো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক মৎস্য চাষীরা অভিযোগ তুলে বলেন, এ বছর একশ’ ২১ টি পুকুর ইজারার মাধ্যমে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য তারা বিভিন্ন ভাবে আমাদের হয়রানী করছেন। প্রশাসন ও রাজনৈতিক মহলটির সাথে সমঝোতা না হওয়া পর্যন্ত পুকুর গুলো ইজারা দেওয়া হবে না। তবে উপজেলা ভূমি কমিশনার লিয়াকত আলী শেখ বলেন, গত ৩০ মার্চ আমি মিটিংএ থাকায় ওই দিন ডাক হয়নি। অপরদিকে গত ৫ এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা না থাকায় ডাক হয়নি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নুরুজ্জামান বলেন, পুকুরের সংখ্যা নিয়ে কিছু জটিলতা রয়েছে। পুকুরের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে, সে কারণে ডাক স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তিতে ওই পুকুর গুলো ডাকের মাধ্যমে ইজারা দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Check Also

নাটোরে বৃদ্ধ দম্পতির রহস্যজনক মৃত্যু, দুই ছেলে আটক

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের লালপুরের কদিম চিলান গ্রামে স্বামী আব্দুস সোবাহান (৭৫) ও স্ত্রী মানিকজান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *