রাত ১:৫৮ বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর, ২০১৯


৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মেঘনা ইজেডে হচ্ছে ৮ শিল্প 

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : March 30, 2018 , 6:09 pm
ক্যাটাগরি : শিল্প ও বাণিজ্য
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলের (ইজেড) অনেকগুলোর উন্নয়নকাজ দ্রুততার সঙ্গে এগিয়ে চলছে। এর মধ্যে এগিয়ে রয়েছে মেঘনা অর্থনৈতিক অঞ্চল। এ অঞ্চলে কয়েক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। এর মধ্যে তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে স্থাপন করা হয়েছে আট শিল্প ইউনিট। এসব কারখানার পণ্য উৎপাদনও শুরু হয়েছে।

আগামীকাল শনিবার মেঘনা ইজেড ও মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইজেডে স্থাপন করা নতুন এসব শিল্প কারখানা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হবে। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং বিশেষ অতিথি থাকবেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

ঢাকার অদূরে নারায়ণগঞ্জে ৩০০ একরের বেশি জমিতে এ ইজেড দুটির উন্নয়ন কাজ চলছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দু’পাশে ইজেড দুটি স্থাপন করা হয়েছে। মেঘনা ইজেডে মেঘনা এডিবল ওয়েল অ্যান্ড রিফাইনারি, সোনারগাঁ ফ্লাওয়ার ও ডাল মিল, তাসনিম কেমিক্যাল কমপ্লেক্স ইউনিট-২, মেঘনা পাল্প অ্যান্ড পেপার মিল ও এমপিজি পাওয়ার প্লান্ট স্থাপন করা হয়েছে। আর মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইজেডে ইউনিক সিমেন্ট ফাইবার ইন্ডাস্ট্রি, মেঘনা ফুড অ্যান্ড বেভারেজ ও সোনারগাঁ স্টিল স্ট্রাকচার স্থাপন করা হয়েছে। এসব কারখানা স্থাপনে ৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে।

মেঘনা গ্রুপের উপমহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব বিভাগ) সুমন চন্দ্র ভৌমিক বলেন, নতুন করে চালু হওয়া আটটি শিল্পে প্রায় ৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে। দুটি ইজেড পুরোপুরি চালু হলে ৩০ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। ইজেডে শুধু নিজস্ব বিনিয়োগ নয়। বিদেশি বিনিয়োগও আসছে। ইতিমধ্যে অস্ট্রেলিয়ান একটি হ্যাঙ্গার নির্মাতা কোম্পানি সমঝোতা স্মারক সই করেছে। কোম্পানিটি কারখানা স্থাপনে বিনিয়োগ করছে। এ ছাড়া জাপান, সুইজারল্যান্ড, চীন, কানাডা ও জার্মানির উদ্যোক্তা এবং দেশি উদ্যোক্তারা বিনিয়োগে আসছেন।

ওই কর্মকর্তা জানান, বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দুটি কালি উৎপাদনে বিনিয়োগ করবে। আরও একটি প্রতিষ্ঠানের হ্যাঙ্গার উৎপাদনে বিনিয়োগ করার কথা আছে। নির্মাণ উপকরণ আঠা উৎপাদনে বিনিয়োগ করবে আরেকটি কোম্পানি। তিনি আরও জানান, দেশি প্রতিষ্ঠান আল মোস্তফা গার্মেন্টস এক্সেসরিজ উৎপাদন করবে। কেমিক্যাল উৎপাদনে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে এস টু এস গ্রুপের। এ দুটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

এসবি/ এআইআর