রাত ৯:১১ মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর, ২০১৯


স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাঘা থেকে রাজশাহীর দুই শিক্ষার্থী আটক

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : July 3, 2018 , 10:34 pm
ক্যাটাগরি : রাজশাহীর সংবাদ
পোস্টটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে রাজশাহী থেকে বাঘায় এসে এক ভাড়া বাসায় বসবাস করছিলো দুই শিক্ষার্থী। মিডিয়া কর্মীদের মাধ্যমে খবর পেয়ে ওই বাড়িতে উপস্থিত হন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। এরপর বিয়ের বৈধ কাগজ-পত্র দেখাতে না পারায় দুইশত টাকা জরিমানা-অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার গাওপাড়া এলাকায় উয়াজ আলীর ছেলে মহির মিস্ত্রীর বাড়িতে যান স্থানীয় বাঘা প্রেস ক্লাবের তিন সাংবাদিক। সেথানে গিয়ে দেখা যায়, রাজশাহীর সদরের মেহের চন্ডি গ্রামের আলাউদ্দিনের কলেজ পড়ুয়া ছেলে শাওন একই এলাকার সুমাইয়া নামে দশম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ওই বাসায় বসবাস করছেন। এ সময় তাদের কাছে বিয়ের কাগজ-পত্র দেখতে চাওয়া হলে তারা বৈধ কোন কাগজ দেখাতে পারেনি।

ঘটনার এক পর্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে খবর দেন সাংবাদিরা। এরপর সেখানে গিয়ে বৈধ কোন কাগজ না পাওয়ায়-দুই শিক্ষার্থীসহ বাড়ির মালিক মহিরের স্ত্রীকে আটক করে তাঁর কার্যালয়ে নিয়ে যান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা।

পরে দুপুরে শিক্ষার্থীর অবিভাবকরা তাঁর কার্যালয়ে উপস্থিত হলে তাদের সামনে প্রত্যেককে ২’শত টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের রায় প্রদান করা করেন তিনি। এ রায় ঘোষনার পরে প্রত্যেকের পরিবার জরিমানার টাকা পরিষধ করে তাঁদের মুক্ত করেন।

উল্লেখ্য গত ১০ দিন পুর্বে উপজেলার গাওপাড়া গ্রামের মহির মিস্ত্রির বাড়ির এক রুম ভাড়া নেয় দুই শিক্ষার্থী শাওন-সুমাইয়া। এর মধ্যে রাজশাহীর মেহের চন্ডি এলাকার বাসিন্দা আলা উদ্দীনের ছেলে শাওন। সে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় স্কুল এ্যান্ড কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং একই গ্রামের আব্দুস সালামের মেয়ে সুমাইয়া জেলার খড়খড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানা গেছে।

এসবি/এনজেড/এসএস