রাত ১:১৩ বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯


স্নিগ্ধতা ছড়াচ্ছে নানা রঙের ফুল

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : জানুয়ারি ৩০, ২০১৯ , ১১:৩০ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজশাহীর সংবাদ
পোস্টটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : দর্শনার্থীদের পদচারণায় জমে উঠেছে রাজশাহীর পুষ্পমেলা। নানান রঙ আর জাতের ফুলের মৌ মৌ গন্ধে সুগন্ধিত হয়ে উঠেছে মেলা প্রাঙ্গন। ফুলের সেই নিষ্পাপ সৌরভে মন মাতিয়ে তুলতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভিড় জমাচ্ছেন তরুণ-তরুণী ও কচিকাঁচা শিশুরা।

কেউ দেখতে, কেউ কিনতে হাজির হচ্ছেন বাহারি ফুলের হাটে। কেউ বা রঙিন ফুলের বাগানে দাঁড়িয়ে শখের বসে হাতের মুঠোয় থাকা স্মার্টফোন দিয়ে তুলছেন নানান অ্যাঙ্গেলের সেলফি। স্টল মালিকরা জানিয়েছেন, প্রথম দিন থেকেই চলছে বেচাকেনা। ফুলপ্রেমি মানুষ কম দামেই পাচ্ছেন পছন্দের ফুলগাছ।

রাজশাহী মহানগরীর কাজিহাটা মনিবাজার চত্বরের ওয়ান ব্যাংকের সহযোগিতায় পাঁচ দিনের এ মেলার আয়োজন করেছে বৈকালী সংঘ। এবারের পুষ্পমেলায় বিভিন্ন ফুলের ২০টি স্টল স্থান পেয়েছে। স্টলে স্টলে রয়েছে কয়েকশো’ প্রজাতির ফুল। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পুষ্পমেলা দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকছে।

মেলার তৃতীয় দিন বুধবার বিভিন্ন স্টলে গিয়ে দেখা গেছে, হরেক রকমের দেশি-বিদেশি ফুল ও ফুলগাছের সমাহার। চোখ ধাঁধানো স্টার, গ্যাজানিয়া, গাদা, গোলাপ, ডালিয়া, জারবেরা, ক্রিজিয়াম, সালেসিয়া, ছলি ক্রিজিয়াম, ইফোরভিয়াসহ নানা প্রজাতির ফুলের গাছ রয়েছে সেখানে। এগুলোর কোনো কোনোটির দাম ৩০ টাকা থেকে শুরু করে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে।

বৈকালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক রইস উদ্দিন আহমেদ বাবু বলেন, আধুনিক যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশীয় ফুলের সঙ্গে বিদেশি জাতের নানা ফুল এখন দেশের উচ্চবিত্ত মানুষের বাগান ও ঘর-বাড়ির সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে শোভা পায়। নানা রঙ, গন্ধ ও জাতের ফুল পুষ্পপ্রেমীদের মনে বাড়তি আনন্দের খোরাক যোগায়। নামি-দামি অনেক ফুল সাধারণ মানুষের চোখে খুব একটা পড়ে না। তাই তারা এক সঙ্গে এতো ফুলের সোন্দর্য উপভোগ করতেও পারেন না। তা বিবেচনা করেই রাজশাহীতে প্রতি বছর বৈকালী সংঘ এ ব্যতিক্রমী আয়োজন করে আসছে।

পুষ্পমেলায় আসা রাজশাহী কলেজের ছাত্রী আনিকা রহমান বলেন, এবারই প্রথম তিনি পুষ্পমেলায় এসেছেন। তবে মেলায় এসে যে এতো ভালো লাগবে, তা আগে ভাবতে পারেননি তিনি। নানা প্রজাতির ফুল একসঙ্গে দেখতে পেয়ে তিনি মুগ্ধ হয়েছেন। এমন নির্মল আনন্দ অনেক দিন উপভোগ করেননি তিনি।

সবার কাছে মেলাকে প্রাণবন্ত করতে মেলার সঙ্গে এবারও নানা বয়সী শিশুদের আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন, নৃত্য, দেশের গান ও ছড়াগান প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। আজ দুপুরে শিশুদের ছড়াগান ও দেশ গান প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগমীকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় অনুষ্ঠিত হবে নৃত্য প্রতিযোগিতা।

পাঁচ দিনের স্নিগ্ধতা ছড়িয়ে আগামী শুক্রবার মেলা শেষ হচ্ছে। মেলার সমাপনি অনুষ্ঠানে বিজয়ী শিশুদের মাঝে বিতরণ করা হয় পুরস্কার। সন্ধ্যা ৬টায় এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

এসবি/আরআর/এআইআর