বিকাল ৪:০০ সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯


মোদির লক্ষ্য নিয়ে প্রশ্ন রঙ্গরাজনের

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : নভেম্বর ২২, ২০১৯ , ৪:২০ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিদেশ
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ভারতে অর্থনৈতিক হাল যে খুব একটা সুবিধার নয়, তা অনেক পরিসংখ্যানই বলছে। কেউ কেউ তো আবার বলছেন, ৭০ বছরের মধ্যে ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা সবচেয়ে সংকটে। তবে এসব পরিসংখ্যানের ধার ধারেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর লক্ষ্য স্থির। ২০২৫ সাল নাগাদ ভারতকে ৫ ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হিসেবে গড়ে তুলবেন তিনি।

তবে বর্তমানে যে প্রবৃদ্ধির হার তাতে মোদি সরকারের এই লক্ষ্যে পৌঁছানোর প্রশ্নই ওঠে না বলে মনে করেন রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার (আরবিআই) সাবেক গভর্নর চক্রবর্তী রঙ্গরাজন।

রঙ্গরাজন মনে করেন, এই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে বছরে কমপক্ষে ৯ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি হতে হবে। বর্তমানে প্রবৃদ্ধির যে হাল, তাতে তা একেবারেই অসম্ভব। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে আমাদের অর্থনীতি ২ দশমিক ৭ ট্রিলিয়ন ডলারের। আর আমরা লক্ষ্য নিয়েছি পাঁচ বছরের মধ্যে তা দ্বিগুণ করে ৫ ট্রিলিয়ন ডলার করার। ওই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে কমপক্ষে ৯ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে হবে, যার প্রশ্নই ওঠে না।’ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন আরবিআইয়ের সাবেক প্রধান। তিনি বলেন, দুটি বছর ইতিমধ্যে গেছে। চলতি বছর প্রবৃদ্ধির হার ৬ শতাংশের নিচে। আগামী বছর প্রবৃদ্ধি হবে ৭ শতাংশ হারে। এরপর প্রবৃদ্ধি কিছুটা হলেও বাড়তে পারে।

রঙ্গরাজন বলেন, ‘ধরে নেওয়া যাক, আমাদের জিডিপি ৫ ট্রিলিয়ন ডলারের হলো। তারপরও ভারতের জনগণের মাথাপিছু আয় হবে বছরে ২ লাখ ৫৮ হাজার রুপি, যা নিম্ন-মধ্যম আয়ের বন্ধনীতেই থাকবে। বর্তমানে যা ১ লাখ ২৯ হাজার রুপি। উন্নত দেশ হতে হলে মাথাপিছু আয় কমপক্ষে ৮ লাখ ৬০ হাজার রুপি হতে হয়। আমাদের সেই পর্যন্ত পৌঁছাতে কমপক্ষে ২২ বছর সময় লাগবে। সে পর্যন্ত যেতে প্রবৃদ্ধির হার ৯ শতাংশে ধরে রাখতে হবে।’

ভালো নেই ভারতের অর্থনীতি। ধুঁকছে অটোমোবাইল, পোশাক ও নির্মাণশিল্প৷ বেকারত্ব ও নগদের সংকটও রেকর্ড ভেঙেছে। এখন রিজার্ভ ব্যাংক থেকে বিপুল অর্থ নিতে হচ্ছে সরকারকে। এমন পরিস্থিতিতে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ৫ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে পৌঁছানোর লক্ষ্য অসম্ভব বলে মনে করছেন অনেক অর্থনীতিবিদও।

এসবি/জেআর